শিক্ষকদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে অষ্টম দিনের মত অবস্থান কর্মসূচি 

কুবি প্রতিনিধি:
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈন ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড.মো: আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে অছাত্র ও বহিরাগত কর্তৃক শিক্ষকদের উপর হামলার প্রতিবাদে উভয়ের পদত্যাগ ও অপসারণের এক দফা দাবিতে অষ্টম দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষক সমিতি।
আজ বুধবার (১৪ মে) দুপুর ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ কর্মসূচি শুরু হয়।
কর্মসূচির বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, আমাদের এক দফা দাবি উপাচার্যের পদত্যাগ। গত ২৮ এপ্রিল একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা আমাদের এক সহকর্মী বিদ্যুৎ যাকে প্রক্টর (কাজী ওমর সিদ্দিকী) ঘুসি দিয়েছে। উনি অনেক দিন ধরে বিচারের দাবি করে আসছেন কিন্তু বিচার এখনো পর্যন্ত পান নাই। ব্যক্তিগতভাবে উনার মানসম্মান ক্ষুণ্ন করা হয়েছে, সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছেন। তাই সঠিক বিচারের দাবিতে আজকে উনি নিজে প্রশাসনিক ভবনের সামনে প্লেকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়েছেন। গত ২৮ তারিখের ঘটনায় যে তদন্ত কমিটি সেই কমিটির একজনকে নিয়ে আপত্তি আছে। আমরা রেজিস্ট্রার বরাবর একটা দরখাস্ত দিবো। হেলাল উদ্দিন মিজান সিন্ডিকেট সভায় প্রত্যক্ষভাবে উপাচার্যকে সাহায্য করেন বলে একাধিক সিন্ডিকেট সদস্যের কাছ থেকে আমরা তথ্য পেয়েছি।
এছাড়া ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে কোনো কর্মসূচি করা হবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা তো আগেও বলেছি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিতে হবে। শিক্ষকদের বিভিন্ন কাজ থাকে অনেক সময় শিক্ষার্থীদের সাক্ষরের প্রয়োজন হয়। যখন বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে তখন ক্লাস,পরীক্ষা নেওয়ার একটা তাগিদ থাকবে সে ক্ষেত্রে আমরা সাধারণ সভার মিটিং থেকে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিবো।
উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈন, প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী, সহকারী প্রক্টর অমিত দত্ত, জাহিদ হাসান এবং আইকিউএসির পরিচালক ড. রশিদুল ইসলাম শেখের নেতৃত্বে অছাত্র ও বহিরাগত সন্ত্রাসী কর্তৃক শিক্ষকদের উপর হামলা করা হয়।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * অবস্থান কর্মসূচি * কুবি
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ