১২০ মণের সবজি খিচুড়ি!

পাবনা প্রতিনিধি:

পাবনার বেড়া উপজেলার বেড়া পৌর এলাকার দক্ষিন পাড়া মহল্লায় দক্ষিন পাড়া যুবসমাজের উদ্যোগে ১০ তম বার্ষিক সব্জি খিচুড়ি উৎসব নামের এক ব্যাতিক্রমি ভোজন উৎসব গত শুক্রবার (৯ফেব্রুয়ারি) রাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জানা যায়, ২০১৩ সালে পৌর এলাকার দক্ষিন পাড়া মহল্লার ফল ব্যবসায়ী ফজলু মিয়ার উদ্যোগে মহল্লার দশ বারোজন যুবক এ খিচুড়ি উৎসবের সূচনা করেন। সে বছর শতাধিক মানুষকে সেই সব্জি খিচুড়ি খেয়ে এ উৎসবের সূচনা করেন । সময়ের ব্যবধানে এই আয়োজনর পরিধি যেমন বেড়েছে তেমনি সুদৃঢ় হয়েছে সামজিক বন্ধন।এবারের উৎসবে ধর্মবর্ণ দলমত নির্বিশেষে ছয় সাত হাজার শিশু, নারি-পুরুষ সব্জি খিচুড়ি উৎসবে উপস্থিত হয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন আয়োজক কমিটি।

আয়োজক কমিটির সূত্রে বরাত দিয়ে দক্ষিন পাড়া মহল্লার বাসিন্দা বেড়া মুনজুর কাদের মহিলা ডিগ্রি কলেজের ভুগোল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবুল কালাম
আযাদ বলেন, এবারের আয়োজনে ১২ মন চাউল, ৪ মন মসুরের ডাউল ও ১২০ মন বিভিন্ন ধরনের সব্জি মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে সব্জি খিচুড়ি। এতে আমন্ত্রিত বেড়া পৌর এলাকা দক্ষিণপাড়া, দাসপাড়া, কর্মকারপাড়া, শাহপাড়া, শেখপাড়া, হাতিগাড়াসহ আশপাশের কয়েক হাজার মানুষ উপস্থিত হয়ে খিচুড়ি উৎসবে যোগ দিয়েছে।

আয়োজক কমিটির সদস্য যুব নেতা ইমরান হোসেন জানান, এ উৎসবকে কেন্দ্র করে মহল্লায় জমে উঠেছে এক আনন্দঘন পরিবেশ। ইতিমধ্যে এলাকার অনেক ছেলে মেয়ে তাদের বাপের বাড়িতে চলে এসেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উন্মুক্ত আমন্ত্রণ দেয়ায় এবারে লোকসমাগম বিগত বছরগুলোয় তুলনায় অনেক বেশি ছিলো বলে তার দাবি ।

এ উৎসবকে সামনে রেখে পাবনা শহর থেকে নিজ মহল্লায় এসেছেন রেবা খাতুন মানিকগঞ্জ থেকে নাসিমা খাতুনসহ বেশ কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে তারা
সব্জি খিচুড়ির টানে নয় এসেছেন ভাতৃিত্বের বন্ধনে। সবারই একই কথা বছরে একবার এলাকার মানুষের সাথে একত্রিত হওয়া ও পরস্পরের সেতু বন্ধনের যে প্রাপ্তি তার অনুভূতি প্রকাশ করা যায় না। বিশাল এ মহল্লার একটাই সমাজ আর সেটি ধরে রাখতে নবীন প্রবীনরা কাজ করে যাচ্ছে। ধনী-গরিব মিলেমিশে থাকা বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় বড়ো কঠিন আর এই কঠিন কাজটি যুবকরা নেতৃত্ব দিচ্ছে বলেই তাদের উৎসাহ দিতে বাইরে থাকা মানুষ গুলো এখানে এসে সংহতি প্রকাশ করছে।

সরেজমিনে শুক্রবার রাত ৮ টায় গিয়ে দেখা যায় সামিয়ানা টানানো প্যান্ডেলের নিচে মাটিতে চাঁদর বিছানো আসনে তিন শতাধিক মানুষ কাতার বদ্ধ হয়ে খিচুড়ি ভোজনে মত্ত রয়েছেন। অনতিদুরে আগতরা কেউ দাঁড়িয়ে আবার কেউ চেয়ারে বসে রয়েছেন।এভাবে সুশৃঙ্খল ভাবে হাজার হাজার মানুষকে আপ্যায়ন করা হয়েছে গভীর রাত পর্যন্ত।

খিচুড়ি রান্না ও পরিবেশনে সাথে যুক্ত থাকা আলাউদ্দিন, নুরইসলাম, রুহুল আমীনরা জানান, এতে শীতকালীন সব্জি আলু, ফুল কপি, বাধা কপি, পেঁপে, মিস্টি কুমড়া, লাউ, সিম, টমেটো, গাজর, মুলা শালগমসহ নানা ধরনের সব্জির সাথে ১২ মন চাল ও ৪ মন ডাল মিশিয়ে সুস্বাদু সব্জি খিচুড়ি তৈরি করা হয়েছে।

ব্যাতিক্রমি এ আয়োজনের সূচনাকারি ফজলু মিয়া বলেন, ২০১৩ সালে সর্বপ্রথম দক্ষিণপাড়া মহল্লার দশ বরোজন বন্ধু মিলে শতাধিক মানুষকে এ সব্জি খিচুড়ি খাওয়ানো হয়েছিল । বাড়িতে রান্না করা খিচুড়ির চেয়ে সেই খিচুড়ির স্বাদ বেশি হওয়ায় সে সময় বন্ধুদের মধ্যে এমন আয়োজনের উৎসাহ জাগে। তারপর থেকে প্রতিবছর এই আয়োজনের ব্যাপকতা ও আগ্রহ বেড়েই চলছে ।

তিনি জানান মহল্লাবাসীর এ আয়োজনের সাথে পৌরবাসী ও বাইরে থাকা মানুষেরা অপেক্ষায় থাকে এই দিনটির জন্য। প্রতিবছরই এর পরিধি বৃদ্ধি পাওয়ায় অনুদান দাতাদের আগ্রহও বেড়েছে। তিনি বলেন এ মহল্লার যুবকদের সাথে অন্যান্য মহল্লার মহল্লার যুবকদের সেতু বন্ধন বৃদ্ধিতে উৎসবটি সার্বজনিন হয়েছে।

বেড়া পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ মোশাররফ হোসেন রান্টু বলেন, গ্রামের যুব সমাজ এর আয়োজন করলেও সর্বস্তরের মানুষ এতে সাহায্য ও পৃষ্ঠপোষকতা করে থাকেন। এ ধরনের অনুষ্ঠান পৌরসভার মধ্যে শুধুমাত্র তার ওয়ার্ডেই হয়ে থাকে বলে তিনি জানান।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * সব্জি খিচুড়ি উৎসব
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ