ইবিতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিলের দাবি ছাত্র মৈত্রীর

 

ইবি প্রতিনিধি :
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।
শুক্রবার (২৬ মে) শাখা ছাত্র মৈত্রীর দপ্তর সম্পাদক পবিত্র রায় পার্শ্ব প্রেরিত এক সংবাদ বিবৃতিতে এটি জানা যায়।
সংবাদ বিবৃতিতে বলা হয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আগামী ৩ জুন থেকে ১২ জুন পর্যন্ত মোট ১০ দিন গ্রীষ্মকালীন ছুটি। একইসঙ্গে ১০ দিনের ব্যবধানে ২২ জুন থেকে ঈদ-উল-আযহার ছুটি শুরু হবে। এই দীর্ঘ ছুটিতে ক্যাম্পাসের একাডেমিক কার্যক্রমের ছন্দপতন হবে বলে মনে করে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। তাই একাডেমিক কার্যক্রমের স্বাভাবিকতা বজায় রাখতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিলের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ।
বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আশিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিরুল কবির সৌরভ এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, করোনাকালীন প্রায় দেড় বছরের ছুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রমে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। বিভাগগুলো এখনো সেই ধকল কাটিয়ে উঠতে পারেনি। যার ফলে সেশনজট তীব্র আকার ধারণ করেছে। তাই সেশন জট পুষিয়ে উঠতে ধারাবাহিক ক্লাস- পরীক্ষা নেওয়া এবং ছুটি কমানোর বিকল্প নেই।
নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, সেশনজট প্রতিটি শিক্ষার্থীর জন্য মরার উপর খরার ঘাঁ হয়ে দাড়িয়েছে। এমতবস্থায় গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিল করে কিছুটা হলেও সেশনজট কমিয়ে আনা সম্ভব। কারণ এর পরেই আবার ঈদের ছুটি থাকার কারণে কয়েকদিন বিশ্ববিদ্যালয় খোলা থাকলেও একাডেমিক কার্যক্রমে ছন্দপতন হবে বলে আমরা মনে করি। বিবৃতিতে শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিল করতঃ একাডেমিক কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জোর দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * ইবিতে গ্রীষ্মকালীন * ইবিতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিলের দাবি ছাত্র মৈত্রীর * ছাত্র মৈত্রীর
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ