সাভারের নারী নেত্রীর স্বামীর করা মামলায় সাংবাদিক গ্রেফতার

 

আনিসুর রহমান, সাভার প্রতিনিধিঃ

ঢাকার সাভারে মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রীকে মারধরের মামলায় স্থানীয় সাংবাদিক উজ্জল হোসেন মোল্লাকেগ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৬ মে) ভোর রাতে চাঁপাইন লালটেক এলাকার বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।গ্রেফতারের বিষয়টি দৈনিক তৃতীয় মাত্রাকে নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) সহিদুল ইসলাম।

এর আগে ঢাকা জেলা উত্তর মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাভার সদর ইউনিয়নের সাবেকমহিলা মেম্বার শারমিন হকের স্বামী মো. ওবায়দুল হক বাদী হয়ে ১৯ মে সাংবাদিক উজ্জ্বলকে প্রধান করে বাবা বেনুমোল্লা, বড় ভাই মৃদুল মোল্লা সহ সাংবাদিক পরিবারের ৫ জনের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিতঅভিযোগ দেন। সেই অভিযোগ আমলে নিয়ে মামলা হলে ২৬ মে ভোর রাতে বাসা থেকে গ্রেফতার হয় উজ্জলহোসেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জেরে ১৯ মে সন্ধ্যায় সাংবাদিক উজ্জ্বল হোসেনের নেতত্বে তার বাবা, বড়ভাই, পরিবারের অন্য সদস্যরা সহ এলাকাবাসী সাবেক মহিলা মেম্বার শারমিন আক্তারের বাড়িতে অতর্কিত হামলাচালায়। হাতাহাতির একপর্যায়ে নারী নেত্রী শারমিন হক, স্বামী ওবায়দুল হক ও ছেলে শাহরিয়ার শ্রাবণকে মারধরকরে। পরবর্তীতে তারা সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।

উজ্জল হোসেন দৈনিক আগামীর সময় পত্রিকার সাভার প্রতিনিধি। এর আগে তিনি একটি বেসরকারি টেলিভিশনচ্যানেলের ভিডিও চিত্র ধারণের দায়িত্ব পালন করেন।

স্থানীয়রা জানান, সাবেক মহিলা মেম্বার শারমিন হকের নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া মেয়ে সম্প্রতি প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েপড়ে। মেয়ে পাশের বাড়ির বান্ধবীর মোবাইল থেকে প্রেমিকের সাথে কথা বলার সময় শারমিন হক জানতে পেরেমেয়ের বান্ধবীর মোবাইল ভেঙ্গে দেওয়ার পর দুইজনকে বেধড়ক মারধর করে মেয়েকে নিয়ে বাড়ি চলে যায়।পরবর্তীতে মোবাইল ভেঙ্গে দেওয়া ও মারধরের ঘটনায় প্রতিবেশী সাংবাদিক উজ্জ্বল হোসেন ও স্থানীয় মুরুব্বিদেরজানালে তারা বিষয়টি জানতে সাবেক মহিলা মেম্বার শারমিন হকের বাড়িতে যায়। এ সময় সাংবাদিক উজ্জ্বলহোসেন সহ আগত সবার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন শারমিন হকের স্বামী ওবায়দুল হক। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়েহাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে সবাই। পরে সাবেক ওই মহিলা মেম্বার হাসপাতালে ভর্তি হয়ে স্বামীকে বাদী করে থানায়অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে সাংবাদিক উজ্জলের পরিবারের অভিযোগ, করোনাকালীন সময়ে রানিং মেম্বার ছিলেন শারমিন হক। ওইসময় কয়েকটি পরিবারকে খাবার না দিয়ে ঘরবন্দী করে লকডাউন দেয় শারমিন হক ও তার স্বামী ওবায়দুল হকনিজেই। এ বিষয় সহ তার অনিয়ম দুর্নীতির ব্যাপারে সংবাদ প্রকাশ করলে উপজেলা প্রশাসন ওই পরিবারগুলোকেলকডাউনের আওতামুক্ত করে। একতরফা কাজ করায় উপজেলা প্রশাসন থেকে তৎকালীন ঐ মহিলা মেম্বারকেসতর্ক করা হয়। এরপর থেকে সাংবাদিক উজ্জ্বল হোসেনের প্রতি ক্ষিপ্ত ছিলেন মহিলা মেম্বার শারমিন হক ও তারস্বামী ওবায়দুল হক।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিক উজ্জলের সঙ্গে শারমিন হক ও তার স্বামী ওবায়দুল হক পূর্ব শত্রুতার কারণস্বীকার করেছেন তবে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) সহিদুল ইসলাম বলেন সাবেক মহিলা মেম্বারশারমিনকে মারধরের অভিযোগে মামলার পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে শুক্রবার সকালে সাংবাদিক উজ্জ্বলহোসেনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * স্বামীর করা মামলায় সাংবাদিক গ্রেফতার
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ