কালাইয়ে স্কুল শিক্ষার্থী সিয়ামকে বাঁচাতে বাবার আকুতি

এস এম আব্দুল্লাহ সউদ, কালাই উপজেলা প্রতিনিধিঃ
কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই মাত্র ১৫ বছর বয়সে নিভু নিভু করছে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আরেফিন রহমান সিয়ামের জীবন প্রদীপ। বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্ট করা না গেলে মৃত্যু তার অবধারিত এমনটাই বলেছেন চিকিৎসকগণ। বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্ট করতে খরচ হবে ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা। কিন্তু সিয়াম নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে হওয়ার কারণে সেই সাধ্য তার পরিবারের নেই। যা সঞ্চয় ছিল সব চিকিৎসা বাবদ ব্যয় করে এখনও সুস্থ হয়নি সিয়াম। তার সুস্থতার জন্য গত কয়েক মাসে ১১ লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হয়েছে। এখন প্রতিমাসে রক্ত দেওয়া ছাড়াও ঔষুধের জন্য খরচ হচ্ছে ৭০ হাজার টাকা। এ অবস্থায় সিয়ামকে বাঁচাতে হলে দ্রুত বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্ট করার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকগণ।
কালাই পৌরসভার পূর্বপাড়া মহল্লার আশিকুর রহমানের বড় ছেলে আরেফিন রহমান সিয়াম। সে কালাই ওমর কিন্ডার গার্টেন স্কুলের নবম শ্রেণির একজন শিক্ষার্থী। সিয়াম অসুস্থ হয় গত বছরে। শরীরে তার রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। চিকিৎসার জন্য তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে গত বছরের ৮ আগষ্ট হাসপাতালের হর্মাটালজি বিভাগের প্রধান ডা.সুরঞ্জিত সরকার তিতাস সিয়ামের অর্ধেক রক্তশূন্যতা রোগ শনাক্ত করেছেন। এটি একটি বিরল রক্তব্যাধি। যা শরীরের প্রয়োজনীয় সংখ্যক রক্তকণিকা উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। এরপর ঢাকা, রংপুর এবং ভারতের ভ্যালুরে সিএমসি সহ একাধিক হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরিক্ষার পর সেখানকার চিকিৎসকগণও সিয়ামের শরীরে একই রোগ শনাক্ত করেন। দুই দেশের চিকিৎসকগণ দ্রুত সময়র মধ্যে সিয়ামের বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্টের পরামর্শ দিয়েছেন। তার শারীরিক অবস্থা এখন খুবই খারাপ। রক্তের প্লাটিনাল এখন ১৫ হাজার এবং হিমোগ্লোবিন মাত্র ৬। বর্তমান ঢাকার সিএমএইচ হাসপাতালের হর্মাটালজি বিশেষজ্ঞ ডা.কর্ণেল মো: মোস্তাফিল করিম সিয়ামের চিকিৎসা করছেন।
সিয়ামের বাবা একজন জুতা ব্যবসায়ী। কালাই পৌরসভায় মসজিদ মার্কেটে তার দোকান আছে। সেই দোকানের আয় দিয়েই তাদের সংসারের খরচ নির্বাহ করে। দোকানের কিছু মালামাল বিক্রি করে গত একবছর ধরে সিয়ামের চিকিৎসা ব্যয় মিটাতে তার খরচ হয়েছে ১১ লক্ষাধিক টাকা। এখন ছেলে সিয়ামের বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্ট করার মত সামর্থ্য তার নেই। তাই ছেলেকে বাঁচাতে বিত্তবান ও সহৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে তিনি সহযোগিতার আহবান জানিয়েছেন।
আশিকুর রহমানের অগ্রণী ব্যাংক কালাই শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নাম্বার–০২০০০১৮৮৪০৬৯৩, বিকাশ নম্বর-০১৭৫৩২৬২৯১০
মোবাইল নং-০১৭২৫-৭৩৩৫৫৫
সিয়ামের বাবা আশিকুর রহমান ছেলে মুখের দিকে তাকিয়ে কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন,‘ছেলের চিকিৎসার জন্য এখনো প্রতিমাস তার ৭০ হাজার টাকার ঔষুধ কিনতে হয়। ছয় শতকের বসতভিটা আর একটি জুতার দোকানই আমার সম্বল। যা কিছু ছিল সবই ব্যয় করেছি। তারপরেও ছেলেকে সুস্থ করার মত কোনো উপায় করতে পারিনি। এখন কিভাবে ছেলের চিকিৎসা ব্যয় মেটাবো ভেবে পাচ্ছি না। বোনমেরু ট্রান্সপ্লান্ট করতে দেশে ২৫ থেকে ৩০ লাখ এবং ভারতে ৩৫ থেকে ৪০ লাখ টাকা খরচ হওয়ার কথা চিকিৎসকগণ জানিয়েছেন। তিনি ছেলেকে বাঁচাতে সমাজর বিত্তবান ব্যক্তিদের সহযোগিতা করার আহবান জানিয়েছেন
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * কালাইয়ে স্কুল শিক্ষার্থী * সিয়ামকে বাঁচাতে বাবার আকুতি
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ