বিশ মিনিট দেরি করে আসায় পরীক্ষা দিতে দেওয়া হলো না মেহেরুন নেসাকে

ফাইল ছবি
জাহিদুল হাসান,জবি প্রতিনিধি:

দেশের গুচ্ছভুক্ত ২২ টি সাধারণ,বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা আজ  শনিবার (২০ মে,২৩) অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুপুর ১২ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত দেশের ১৯ টি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস কেন্দ্রে মানবিক বিভাগের (বি ইউনিট) এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে মেহেরুন নেসা নামক একজন পরীক্ষার্থী ২০ মিনিট দেরি করে আসলে, তাকে প্রশ্নপত্র দিয়ে আবার ওই শিক্ষার্থী থেকে প্রশ্নপত্র ও খাতা নিয়ে নেয় এক শিক্ষক।এতে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ওই শিক্ষার্থী।

ভর্তি পরীক্ষা দিতে না পারা মেহেরুন নেসা বলেন,আমি ২০ মিনিট দেরি করে পরীক্ষা দিতে আসি,পরে স্কাউটের এক আপু আমাকে রফিক ভবনের তৃতীয় তলায় নিয়ে যায়। পরে আমাকে একজন স্যার বলেন ওএমআর শিট নাই,পরীক্ষা দেওয়া যাবে না।পরে স্যার বলেন চেয়ারম্যানের অনুমতি নিতে হবে।চেয়ারম্যানের অনুমতি নিতে নিতে ৪০ মিনিট দেরি হয়ে যায়। পরে ওই স্যার আর আমাকে পরীক্ষা দিতে দেয় নি,আমাকে যখন পরীক্ষা দিতে দিবে না কেন আমাকে একজন শিক্ষকের কাছে এমন হেনেস্তার শিকার হতে হলো?

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.মো.মদাদুল হক বলেন,পরীক্ষায় দেরি করে দিতে আসা শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারবেন নাকি পারবেন না সম্পূর্ণ দায়িত্ব হলে দায়িত্বে থাকা শিক্ষকদের হাতে।যদিও আমরা শিক্ষার্থীদের মানবিক দিক বিবেচনা করে ১৫-২০ মিনিট দেরি করে আসলেও পরীক্ষায় বসার অনুমতি দিয়েছি,তাছাড়া আজকে  উপকেন্দ্র নটরডেম কলেজের একজন পরীক্ষার্থী ভুল করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে চলে আসলে তারও পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।আমাকে যদি আগে বিষয়টি জানানো হতো তাহলে কোনো কিছু করা যেতো।যেহেতু আমাকে পরে জানানো হয়েছে সেহেতু এখন আর দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া কিছু করার নাই।

শিক্ষকের হেনেস্তার বিষয়ে জানতে চাইলে জবি উপাচার্য বলেন,আমাকে যদি লিখিত অভিযোগ দিয়ে যায় অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * পরীক্ষা দিতে দেওয়া হলো না * মেহেরুন নেসাকে
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ