সাভারে লোডশেডিংয়ে অনিশ্চয়তায় প্রায় পনের’শ পোশাক কারখানার উৎপাদন

আনিসুর রহমান, সাভার প্রতিনিধিঃ

সাভার,আশুলিয়া ও ঢাকার ধামরাইয়ে বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং এর কারণে চরম অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে প্রায় পনের’শর ও বেশী তৈরি পোশাক কারখানার উৎপাদন ব্যবস্থা। এক দিকে যেমন গ্যাস সংকট আবারও নতুন করেঘন ঘন বিদ্যুৎ এর লোড শেডিংসব মিলিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছে তৈরি পোশাক কারখানার মালিকরা।জেনারেটর দিয়ে দিনের বেশীর ভাগ সময়ে পোশাক কারখানা চালু রাখায় একদকে যেমন উৎপাদন খরচ বেড়েছেঅন্য দিকে কারখানা মালিকরা অর্থনীতিক ভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় অনেকে কারখানাও বন্ধ করে দেওয়ারপরিকল্পনা করছে।

তৈরি পোশাক কারখানার মালিকরা জানায়,সাভার,আশুলিয়া ও ঢাকার ধামরাইয়ে ছোট বড় মিলিয়ে প্রায়পনে’শর বেশী তৈরি পোশাক কারখানা রয়েছে। এসব তৈরি পোশাক কারখানায় কাজ করেন কয়েক ল¶ নারী ওপুরুষ শ্রমিক। এসব কারখানার উৎপাদিত পোশাক যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন নামীদামী দেশে রপ্তানীকরা হচ্ছে। কিন্তু গত কয়েকদিন থেকে ঘন ঘন বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং এর কারণে কারখানাগুলোতে উৎপাদনব্যহত হচ্ছে। দিনের বেশীর ভাগ সময়ে বিদ্যুৎ না থাকায় জেনারেটর দিয়ে কারখানা চালানো হচ্ছে। এতে করেউৎপাদন ব্যয় বেড়েছে মালিকদের। সেই সাথে জেনারেটরের তেলও রিজাভ করে রাখতে হচ্ছে তাদের।

 একদিকে দীর্ঘদিন ধরে গ্যাস সংকট চলছে অন্যদিকে আবারও নতুন করে বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং সবমিলিয়ে এ খাতে যেনঅস্থিরতা বেড়েছে। সব মিলিয়ে পোশাক কারখানায় ¶তির মুখে পড়ার আশঙ্কা করেছেন তারা।

এদিকে সবচেয়েবেশী বিদ্যুৎ এ লোডশেডিং এর কবলে পড়েছে সাভারের বিরুলিয়া রোডে অবস্থিত আজিম গ্রুপ। এই গার্মেন্টসেদিনে দশ ঘন্টার মধ্যে আট ঘন্টা বিদ্যুৎ থাকছে না তাই উৎপাদন চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে সময়মত বায়ারদেরশিফমেন্টের পোশাক দিতে পারছে না কারখানা কতৃপক্ষ দিনে এই গার্মেন্টেসে প্রায় তিন লক্ষ টাকার জালানী তেলযাচ্ছে জেনারেটার চালাইতে। আজিম গ্রæপের নির্বাহী পরিচালক জাহেদ কাদের বলেন,বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং ও গ্যাস সংকটের কারণে পোশাক কারখানায় উৎপাদন ব্যবহত হওয়ার পাশাপাশি তারা চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায়কারখানা চালানো নিয়ে দুচিন্তায় পড়েছেন। কারখানাগুলোতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় আগের মত কারখানারফ্লোরগুলো চিরো চেনা রূপ নেই শ্রমিকদের কাজের গতিও কমেছে ঘন ঘন বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং এর কারণে।

দ্রুত বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকট সমাধানের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন কারখানার মালিকরা। এছাড়াও শুধু তৈরি পোশাক কারখানা না বাসা বাড়ি দোকানপাট ও শপিং মলেও বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং এর কারণে তীব্রগরমে মানুষজন পড়েছে চরম বিপাকে।

এবিষয়ে সাভার পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তারা ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজী হয়নি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * পোশাক কারখানার উৎপাদন * সাভারে লোডশেডিংয়ে অনিশ্চয়তা
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ