নারী অগ্রগতির ও ক্ষমতায়নের জন্য পিস ক্যাফে একটি অনুকরণীয় মডেল-জাপানের রাষ্ট্রদূত

   

সেন্টার ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস (সিপিজে), ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউএন উইমেন এর উদ্যোগে জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত

 

আশিকুর রহমান

সেন্টার ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস (সিপিজে), ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইউএন উইমেন এর আয়োজনে ‘বাংলাদেশে উইমেন পিস ক্যাফে উদ্যোগ থেকে অভিজ্ঞতা বিনিময়’ শীর্ষক জাতীয় সম্মেলন-২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সোমবার (২৮ মার্চ) ঢাকার গুলশানের স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে দুই পর্বে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলেনের প্রথম ধাপে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেন্টার ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী পরিচালক মনজুর হাসান। তিনি তার স্বাগত বক্তব্যে নারীদের শান্তি, সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য প্রতিষ্ঠায় উইমেন পিস ক্যাফের নানাবিধ অর্জন ও অনন্য সাধারণ দিকগুলো সম্পর্কে অবহিত করেন। এরপর বাংলাদেশে উইমেন পিস ক্যাফে উদ্যোগের প্রাপ্ত শিখন ফলাফল নিয়ে প্রেজেন্টেশন দেন সিপিজের রিসার্চ কো অর্ডিনেটর মুহাম্মদ বদিউজ্জামান ও প্রজেক্ট ম্যানেজার জিয়া উদ্দিন।

 

সম্মেলনে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। তিনি তাঁর  বক্তব্যে এ ধরনের উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, “জাপান জন্মলগ্ন থেকে বাংলাদেশের পাশে ছিল, এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। আমরা বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে বাংলাদেশকে সহযোগীতা করে যাচ্ছি। কিন্তু এ ধরনের সামাজিক উদ্যোগের পাশে থাকতে পেরে জাপান আনন্দিত। নারী অগ্রগতি ও ক্ষমতায়নের জন্য পিস ক্যাফে একটি অনুকরণীয় মডেল।”

সভাপতি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং। তিনি বলেন, “পিস ক্যাফে মডেল শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে সমাজে বৃহৎ পরির্বতন আনতে সাহায্য করবে। প্রথাগত শিক্ষার পাশাপাশি, ক্লাসের বাইরের এ ধরনের কার্যক্রম সমাজের সার্বিক উন্নয়ন করতে সক্ষম।”

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউএন উইমেন বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ দিয়া নন্দা। তিনি বলেন, “আমরা এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চারটি উইমেন পিস ক্যাফে (ডব্লিউপিএস) প্রতিষ্ঠা করেছি এবং প্রায় ৯০০ জন শিক্ষার্থীকে সামাজিক উদ্যোক্তা, শান্তি-নির্মাণ এবং সামাজিক সংহতির বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।”

সিপিজের একাডেমিক অ্যান্ড লিগাল এমপাওয়ারমেন্ট ডিরেক্টর শাহরিয়ার সাদাতের উপস্থাপনায় ইউএন উইমেন এর প্রোগ্রাম এনালিস্ট তানিয়া শারমিনের ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রথম ধাপের আয়োজন সম্পন্ন হয়।

পরবর্তী ধাপে ‘উইমেন পিস অ্যাম্বাসেডর উদ্যোগের অভিজ্ঞতা ও এর সঠিক চর্চা’ বিষয়ক একটি পিস আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়। আড্ডায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সামাজিক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে বিশ্ব শান্তি এবং ন্যায়বিচারের অবদান বিষয়ে আলোকপাত করেন। তাঁরা পিস ক্যাফে থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি শান্তি ও সামাজিক সম্প্রীতির বিষয়ে তাদের অভিজ্ঞতা ও প্রস্তাবনা তথা মতামত ব্যক্ত করেন। পিস আড্ডায় উপস্থিত ছিলেন ৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিস ক্যাফের সদস্যরা।

এরপর বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনারেল এডুকেশন অনুষদের ডিন এবং সিপিজের রিসার্চ ফেলো ডক্টর সামিয়া হক।

এরপর উইমেন পিস অ্যাম্বাসেডর অ্যাওয়ার্ড-২০২২ ও ‘অফলাইন এবং অনলাইনে শান্তি, নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধির প্রভাবক হিসেবে নারীর অবদান’ শীর্ষক ভিডিও কনটেস্ট-২০২২ এ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা ও ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। দ্বিতীয় পর্বের আয়োজনের সভাপতিত্ব করেন ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. ডেভিড ড্যাওল্যান্ড। তিনি বলেন, “বাংলাদেশের ভিতরে ও বাইরেও এই ধরনের মডেল ছড়িয়ে দেয়া প্রয়োজন। শিক্ষার্থীদের এই ধরনের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে একটি গঠনমূলক এবং সমতাপূর্ণ সমাজ গড়ে তোলা সম্ভব।”

উল্লেখ্য, সেন্টার ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস (সিপিজে), ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইউএন উইমেনের তত্ত্বাবধানে জাপান সরকারের অর্থায়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ব্র‍্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে দেশের মোট ৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ে উইমেন পিস ক্যাফের কার্যক্রম চলছে। উইমেন পিস ক্যাফে শান্তিপূর্ণ সমাজ প্রতিষ্ঠায় নারীর ক্ষমতায়ন, উদ্ভাবনী চিন্তার প্রয়োগ ও বাস্তবায়নে বিভিন্ন কমিউনিটি নারীদের নিয়ে কাজ ও উদ্যোক্তা তৈরিতে সৃষ্টিশীল প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * অগ্রগতি * ক্ষমতায়ন * জাপানের রাষ্ট্রদূত * নারী * পিস ক্যাফে * মডেল
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ