সাটুরিয়ায় শহীদ বেদিতে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ

 

 

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সাটুরিয়ায় শহীদ বেদিতে ফুল দিতে এসে বালিয়াটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ৫ থেকে ৭ জন আহত হয়েছে।

শনিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বালিয়াটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রহুল আমিন শহীদ বেদিতে ফুল দেন। পরে বালিয়াটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একাংশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক আব্দুল সালাম সরদার তার সমর্থকদের নিয়ে ফুল দেন।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবলীগের বহিস্কুত নেতা মো.জাকির হোসেনসহ রহুল আমিনের সমর্থকরা চেয়ারম্যান সোহেল চৌধুরীর সমর্থকদের মধ্যে হট্টগোল বাধে। এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে পুলিশ লাঠিপেটা করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। দুই পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় জাকির ও নাজমুল হোনেনসহ কয়েকজন আহত হয়। নাজমুলের অবস্থা গুরুতর হলে তাকে সাটুরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বালিয়াটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রহুল আমিন জানান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ফুল দিয়েছি। এরপর আওয়ামী লীগের ব্যানারে বহিস্কৃত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান মীর সোহেল আহম্মেদ চৌধুরী তাদেরর সাথে আরেকটি ফুল দিতে গেল আমি আপত্তি করি। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়। যা খুবই দুঃখজনক ও নিন্দনীয়।

বালিয়াটি ইউপি চেয়ারম্যান মীর সোহেল আহম্মেদ চৌধুরী জানান, আমি ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে শহীদ বেদিতে ফুল দেয়।পরে দলীয় আওয়ামী লীগের ব্যানারে ফুল দেয়। আমি বালিয়াটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। গত নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করে জয়লাভ করি। বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় দল থেকে আমাকে সাময়িক বহিস্কার করে। পরে বহিস্কার প্রত্যাহার করা হয়। এ কারণে দলীয় ব্যানারে ফুল দিয়েছি। এতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রহুল আমিন আপত্তি করলে সংঘর্ষের রূপ নেয়।

সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আফাজ উদ্দিন বলেন, শহীদ বেদিতে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার বিষয়টি দু:খজনক। সিনিয়র নেতাদের সাথে কথা কলে যারা এ ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

সাটুরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ ফটো বলেন, যারা এই স্বাধীনতা দিবসে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ করেছে এবং হামলা করেছে তারা এদেশে বিএনপি জামায়াতের দূসর। এদের চিহিৃত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * আওয়ামী লীগ * বালিয়াটি ইউনিয়ন * শহীদ বেদি * সংঘর্ষ * সাটুরিয়া
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ