তাহিরপুরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র:পুলিশ, নারী, ও শিশুসহ ১৫ জন আহত

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় মানববন্ধন কে কেন্দ্র করে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবুল বাশার ও সাধারণ সম্পাদক তানসেন তালুকদার তুষার গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে তাহিরপুর সদর বাজার রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। খবর পেয়ে তাহিরপুর থানা পুলিশ দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৭ রাউন্ড গুলি ছুড়ে । এ সময় পুলিশের ছুড়া গুলিতে ও হামলাকারীদের হামলায় পুলিশ, শিশু ও নারী সহ ১৫ জান আহত হয়েছে। তবে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে আহত  ৩/৪ জন পুলিশ সদস্য নাম জানা না গেলেও আহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এসপি তাহিরপুর সার্কেল সাজিদুর রহমান।

আহত হলেন শিশু অংকন গণি (১২),  আনাছ (১০), তানসেন তালুকদার তুষার এর আম্মা সুমি আক্তার (৪০), আঞ্জু মিয়া (৩৫), রুসেল মিয়া (২৫),বর্ষা ( ১৬), রুনা (৪০), অনিক মিয়া (১২),মেজারুল (৪০),  রাসেল মিয়া (৩৫),মাছুম (২০) ও ভাটি তাহিরপুর গ্রামের মাফিক মিয়ার স্ত্রী। আহতদের বর্তমানে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ ঘটনাটি ঘটেছে আজ(২২ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার)  বিকাল ৫ টার সময় তাহিরপুর উপজেলা সদর বাজারে।

প্রত্যপক্ষদর্শীরা ও পুলিশ ও আহতদের পরিবার সূত্রে জানাযায়, তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি সাংবাদিক রমেন্দ্র নারায়ণ বৈশাখে নির্যাতনের ঘটনায় আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাহিরপুর সদর পশ্চিম বাজারে  তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাব ও নাগরিক সমাজের আয়োজনে মানববন্ধন করা হয়। পরে বিকালে সাংবাদিক রাজনকে নিয়ে সাবে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানসেন তালুকদার তুষার বাজারে ঘুরাঘুরি করলে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাহিরপুর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক হাফিজ উদ্দিনে ভাতিজা  সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি আবুল বাশার, আবু শামা, আবু হানিফ,জোসেফ মিয়া সহ ১৫/২০ জনের একটি গ্রুপ তানসেন তালুকদার তুষার এর উপর হামলা চালায়। পরে এই খবর পেয়ে তানসেন তালুকদার তুষার এর পরিবারের লোকজন বাজারে আসলে দুই গ্রুপের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রসহ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এই খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনার স্থলে গিয়ে সংঘর্ষ থামাতে গেলে এসময় সংঘর্ষকারীদের হামলায় ৩/৪ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭ রাউন্ড গুলি ছুড়ে এ সময়  সংঘর্ষে জড়িত দুই গ্রুপের লোকজন ছত্রভঙ্গ হয়ে গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এতে দুই পক্ষের  প্রায় ১২ আহত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে।

হামলায় গুলিবিদ্ধ অঞ্জু মিয়া বলেন, উপজেলার উজান তাহিরপুর গ্রাম থেকে হঠাৎ ২০/৩০ জন ছাত্রলীগ নেতা তানসেন তালুকদার তুষার এর উপর অতর্কিত হামলা চালায়।  এ তানসেন তালুকদার তুষার এর পক্ষের লোকজন প্রতিহত করতে চাইলে অপরদিক থেকে ছিটা গুলি করা  হয়। এ সময় ভাটি তাহিরপুর গ্রামের গৃহবধূ তানসেন তালুকদার তুষার এর আম্মা সুমি আক্তার (৪৫) গুরুতর আহত হয়।

এ ব্যাপারে সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি আবুল বাশার বলেন,  মানববন্ধনকে নিয়ে সংঘর্ষ হওয়ার বিষয়টি অশিকার করে বলেন, আমাদের প্রতিপক্ষের লোকজন যা বলছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। বিকালে তুষার মোটরসাইকেল যোগে লোকজন নিয়ে মহড়া দিয়ে আমাদের গালাগালি করে। পরে তা আমাদের লোকজন তুষারকে গালাগালির কারণ কি জানতে চাইলে তুষার ও তার লোকজন আমাদের লোকজনের উপর হামলা চালায়।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার (তাহিরপুর সার্কেল) সাজিদুর রহমান বলেন, সাংবাদিক রাজান ও হাফিজ উদ্দিন এই দুজনের মধ্যে রোববার একটা সমস্যা হইছিল।  মুলত একটা নিয়েই আজ দুই পক্ষ সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশ গিয়ে সংঘর্ষের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৭ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এতে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়।  তবে পরিস্থিতি এখন সম্পুর্ন নিয়ন্ত্রণে আছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * তাহিরপুর * দুই গ্রুপের সংঘর্ষ * মানববন্ধন * সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলা
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ