জগন্নাথপুরে তিন সন্তানের জননীর ৬ খন্ড লাশ উদ্ধার

 

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর শহরে এক সৌদিপ্রবাসীর স্ত্রীর ৬ খণ্ড লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ । জানা যায় আজ বৃহস্পতিবার শহরের পৌর পয়েন্টের ব্যারিস্টার আব্দুল মতিন মার্কেটের অভি মেডিক্যাল হল নামের এক ফার্মেসি থেকে ওই নারীর ৬ খণ্ড লাশ উদ্ধার করে। নিহত মহিলার নাম মোছাঃ শাহনাজ পারভীন জ্যোৎস্না, তিনি জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের নারিকেলতলা গ্রামের সৌদি প্রবাসী ছুরুক মিয়ার স্ত্রী। স্বরুপ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র উদয় মোঃ সাইদ, নবম শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস মাহা ও নার্সারিতে পড়ুয়া তাসমি জান্নাত মিম নামে নিহত ঐ মহিলার তিন সন্তান রয়েছে। নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক বছর যাবত পৌরসভা সংলগ্ন নিজ মালিকানাধীন বাসায় সৌদিপ্রবাসীর স্ত্রী তাঁর তিন সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। সেই সুবাদে ব্যারিস্টার মির্জা আব্দুল মতিন মার্কেটে অভি মেডিক্যাল ফার্সেমিতে ওষুধ ক্রয় সূত্রে প্রায়ই যাতায়াত করতেন। গতকাল বুধবার বিকেলে ৩.৩০ মিনিটে ফার্মেসিতে যাচ্ছেন বলে বাসা থেকে বের হন । এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ। নিহত মহিলার ছোট ভাই জানান-বোন বাসায় ফেরেনি জানতে পেরে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তিনি ঐ ফার্মেসিতে যান। তখন ফার্মেসি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে ফার্মেসির মালিক জিতেশ চন্দ্র গোপকে মোবাইলে কল দিলে সে জানায় তাঁর বোন ওষুধ না পেয়ে চলে গেছেন।

নিহতের মহিলার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে পরিবারের লোকজন যোগাযোগ করলে অন্য এক নারী ফোন রিসিভ করে জানান, তিনি (নিহত নারী) সিলেট ওসমানীতে আছেন। সেখান যোগাযোগ করেও তাঁর সন্ধান মেলেনি। পরে তারা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা করেন। এদিকে সন্ধ্যা ৭টার পর থেকে নিহত শাহনাজের মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। বিভিন্ন স্থানে খোজ করেও নিহত শাহনাজের সন্ধান না পেয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিক জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইসলামের উপস্থিতিতে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ তালাবদ্ধ অভি ফার্মেসির তালা ভেঙে দোকানে অভিযান চালায়। এ সময় রোগী দেখার টেবিলের নিচ থেকে চাদর দিয়ে মোড়ানো ওই নারীর বিচ্ছিন্ন শরীরের ছয় টুকরো অংশ দেখতে পায় পুলিশ।

ঘটনার পর থেকে ফার্মেসির মালিক জিতেশ গোপ পলাতক রয়েছে। সে কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার সইলা গ্রামের জাদব গোপের ছেলে। দীর্ঘদিন ধরে সে পৌর শহরে বাসা ভাড়া করে বসবাস করে আসছিলো। এ ঘটনায় জগন্নাথপুর উপজেলায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মিজানুর রহমান বলেন, লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান পুলিশ ওই ফার্মেসির সিলিংএর উপর থেকে একটি রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই ছুরি দিয়েই শাহনাজকে হত্যা করা হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * ৬ খন্ড লাশ * জগন্নাথপুর * জননী
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ