বাঁশের সাঁকোয় আগুন, দুই উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ যোগযোগ বিচ্ছিন্ন

 

জুবেল আহমদ, (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের ওসমানীনগর ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ১০ গ্রামের মানুষের চলাচলের সরাসরি যোগযোগের একমাত্র মাধ্যম একটি বাঁশের সাঁকো রাতের আধারে পুড়িয়ে দিয়েছে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা। এ কারণে দুই উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ গত চার দিন ধরে যোগযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এতে করে সাধারণ মানুষ সহ রোগী ও পথচারীরা চরম দুর্ভোাগের শিকার হচ্ছেন। এ ঘটনায় স্থানীয় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করলেও এখন পর্য়ন্ত ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

গত সোমবার বিকেলে ওসমানীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, উপজেলার উমরপুর ইউপির মজলিশপুর গ্রামের অষ্টাগঙ্গা খালের উপর স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত পাকা সেতু না থাকায় প্রতি বছর শুষ্ক মৌসমে স্থানীয় এলাকাবাসীর উদ্যোগে বাঁশের চাটাই দিয়ে সাঁকো নির্মাণ করা হয়। আর এই সাঁকো দিয়ে ওসমানীনগরের মাধবপুর, মজলিশপুর, মির্জা সহিদপুর, মিটাভরাং, সান্দরগাও এবং জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউপির দাওরাই, ঐয়াকোনা, নোয়াগাও, মিঠাভরাং ও জায়ফরপুর গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ছোট ছোট যানবাহন সহ পায়ে হেটে চলাচল করে অসছে। গত শুক্রবার গভীর রাতে অজ্ঞতনামা দৃর্বত্তরা সাঁকোর একাধিক স্থানে দাহ্যপদার্থ দিয়ে আগুন লাগিয়ে বাঁশের সাঁকোটির একাধিক স্থান পুড়িয়ে দেয়।

সরজমিন গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে পুড়িয়ে দেয়া সাঁকোটি পরিদর্শন কালে দেখা যায় সাঁকোর উত্তর ভাগের অনেকআংশ আগুনে পুড়ে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এ ছাড়াও সাঁকোর একাধিক স্থাননের খন্ড খন্ড অংশ পুরে প্রায় পুরো সাঁকোটি অকেজো হয়ে পরেছে। স্থানীয় একাধিক লোকজন জানান, প্রায় দে মাস পূর্বেও এই সাঁকোটি পুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা একই ভাবে মজলিশপুর গ্রামের পল্লী বিদ্যুতের ৩ কেভি লাইন কেটে খাম্বা ভেঙ্গে ফেলে অজ্ঞাতনামা দুস্কৃতিকারীরা। এই ঘটনায় পল্লী বিদ্যুতের খাশিকাপন জোনাল অফিসের ডিজিএম ওসমানীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন তবে এখন পর্যন্ত পুলিশ সেই ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে সনাক্ত বা গ্রেফতার করতে পারেনি।

মজলিশপুর গ্রামের আনহার আলী, রায়হান আহমদ, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুর রহিম, মিঠাভরাংয়ের উমরা মিয়া, নূরুল ইসলাম ও সিএনজি অটোরিকশা চালক আব্দুল হক বলেন, দুস্কৃতিকারিরা সাঁকোটি পুড়িয়ে ফেলায় আমরা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছি। এ বিষয়ে আমরা তাৎক্ষনিক তিন গ্রামের মানুষ বৈঠক করে মামলা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ঘটনাটি কে বা কারা ঘটিয়েছে তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য আমরা প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

ওসমানীনগর থানার ওসি এসএম মাইন উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ব্যাপারে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * আগুন * বাঁশের সাঁকোয় আগুন * যোগযোগ বিচ্ছিন্ন * সিলেট * সিলেটের ওসমানীনগর * সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ