চিলমারীতে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের পাশে তথ্যআপা 

 

 

 

মমিনুল ইসলাম বাবু  কুড়িগ্রাম  প্রতিনিধিঃ

 

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে তথ্যআপার মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে গ্রামের অসহায়, দরিদ্র, সুবিধাবঞ্চিত কিংবা কম সুবিধাপ্রাপ্ত  নারীরা তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন বিষয়ে সেবা পাচ্ছেন।এতে করে দিন দিন আগ্রহ বাড়ছে নারীদের।

 

জানাগেছে,মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়াধীনে জাতীয় মহিলা সংস্থার বাস্তবায়নে তথ্য আপা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিতায়নের জন্য কাজ করছেন কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় তথ্য আপা। সমাজে নারী নির্যাতন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ এবং জেন্ডার বৈষম্য দূর করতে তথ্যপ্রযুক্তির সুবিধা গ্রহণ একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। ফলে নারীর ভাগ্যবদলের এ সরকারি উদ্যোগে চিলমারী উপজেলার রাণীগঞ্জ, থানাহাট,নয়ারহাট,চিলমারীও  রমনা মডেল ইউনিয়নের ১৬ হাজার নারীকে সেবা প্রদান করেছে তথ্য আপা।এ ছাড়াও উঠান বৈঠক প্রতি মাসে  ৪ টি উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে।উপজেলায় এখন পর্যন্ত ৪৬ টি উঠান বৈঠক হয়েছে।

সুবিধাভুগি মহিলা অনেক।তাদের নাম অফিসে এসে দেখে নিবেন।অষ্টমির চর ছাড়া বাকি ইউনিয়নে কাজ হয়েছে গত আড়াই বছরে।

ছাত্রীরা সাধারণত চাকরির আবেদন করতে আসে,চাকরির খোঁজখবর নিতে আসে।তাদের তথ্য জানতে অফিসে যোগাযোগ করেন।এতে করে  নারীদের  ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।  বিনামূল্যে নারীদের তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে চাকরির আবেদনপত্র পূরণ, ভর্তি পরীক্ষার ফরম পূরণ, বিভিন্ন পরীক্ষার ফলাফল ই-মেইল, মেসেঞ্জার, স্কাইপির সাহায্যে যোগাযোগ, কৃষি, শিক্ষা, ব্যবসা ইত্যাদি সংক্রান্ত পরামর্শ প্রদান, আইনি সহায়তার পরামর্শ প্রদান, নারীদের ডায়াবেটিকস, রক্তচাপ পরীক্ষা, তাপমাত্রা, ওজন মাপাসহ গ্রামীণ নারীদের উৎপাদিত ও সংগৃহীত পণ্য বিক্রয়ের জন্য www.IaaIsobuj.com মার্কেট প্লেস পরিচালনা ডোর টু ডোর, উঠান বৈঠক তথ্যকেন্দ্রের মাধ্যমে প্রদান আসছেন। এই সেবা গ্রহণের মাধ্যমে তৃণমূলে নারীরা সমাজ উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছেন।

 

উপকারভোগী উপজেলার রমনা মডেল ইউনিয়নের জোড়গাছ এলাকার আফরোজা বেগম বলেন, তথ্যকেন্দ্রে কর্মরত তথ্য আপারা উঠানবৈঠকে উপস্থিত গ্রামীণ নারীদের ইন্টারনেটের বাস্তব ব্যবহারের মাধ্যমে সেবাপ্রাপ্তির পদ্ধতি প্রদর্শন করেন এতে আমিও  অনেক কিছু জেনেছি।

থানাহাট হাট ইউনিয়নের ডেমনার পাড়া এলাকার মোছা.জুই আক্তার বলেন, তথ্যসেবা অফিসে এসে জন্ম নিবন্ধনের জন্য বিনামূল্যে আবেদন করলাম আমি সরকারকে এই জন্য ধন্যবাদ জানাই।

গ্রামীণ নারীদের স্বাস্থ্যগত সমস্যা, বাল্যবিবাহ, ফতোয়া, নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা, চাকরি সংক্রান্ত তথ্য, আইনগত সমস্যা এবং বিদেশে থাকা আত্মীয়-স্বজনদের সাথে ই-মেইলে তথ্য আদান প্রদান, ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলার পদ্ধতি শিখিয়ে দেয়া সম্পর্কীত সেবা দিয়ে আজ নারীকে আলোর পথ দেখাচ্ছে ‘তথ্য আপা’রা।

 

এ বিষয়ে তথ্যসেবা কর্মকর্তা মোছাঃ শারমিন রহমান জানান,তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক সেবাগুলো তৃনমুল পর্যায়ে নারীদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার মধ্যমে নারীদের  ক্ষমতায়ন এবং সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে কাজ করছে তথ্যআপা ইতি মধ্যে চিলমারী উপজেলায় তথ্যআপা ডোর টু ডোর,উঠান বৈঠক এবং তথ্যকেন্দ্রের মাধ্যমে গত আড়াই বছরে প্রায় ১৬ হাজার নারীকে বিভিন্ন বিষয়ে সেবা প্রদান করা হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * চিলমারী * তথ্যআপা * নারী * সুবিধাবঞ্চিত
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ