আফগানিস্তানে নাক না গলাতে হুঁশিয়ারি

আফগানিস্তানে তালেবান কর্তৃত্বে আগেই সমর্থন জানিয়েছে রাশিয়া। এ বার সেই ইস্যুতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সব রাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিলেন। তিনি বলেন, ‘তালেবান আফগানিস্তান মোটামুটি দখল করেই নিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নিজেদের মতামত আফগানিস্তানের উপর চাপিয়ে দেয়া উচিত নয় অন্য দেশগুলোর।’

শুক্রবার মস্কোয় জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে বৈঠকের পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন পুতিন। সেখানে আফগানিস্তান নিয়ে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তালেবান আফগানিস্তান দখল করেছে। এটাই বাস্তব। সেই অনুযায়ীই এগোতে হবে আমাদের। যে কোন ভাবে হোক আফগানিস্তানের পতন রুখতেই হবে।’ তালেবানের পুনরুত্থান নিয়ে বিশ্বের সব ক্ষমতাশালী দেশগুলো নীরবতা পালন করছে। যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন তালেবান শাসন মেনে নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে। চীন, পাকিস্তান, তুরস্ক, ইরানও তালেবানকে স্বীকৃতি দেয়া চিন্তা-ভাবনা করছে। রাশিয়াও তালেবান কর্তৃত্বকে এক প্রকার মেনেই নিয়েছে। ইতিমধ্যে মস্কোয় তালেবান নেতাদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেছে তারা। পুতিনের কথায়, ‘বাইরে থেকে জোরজবরদস্তি অন্যের রাজনীতি এবং আচরণ সংক্রান্ত নীতি চাপিয়ে দেয়া যায় না।’

উভয় নেতা বলেন, বিদায়ী জার্মান নেতার রাশিয়া সফরের সময় আফগানিস্তান গুরুত্ব চিহ্নিত হয়েছে। পুতিন যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে ‘বাইরের মূল্যবোধ’ চাপিয়ে দেয়ার ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন নীতির’ সমালোচনা করেছেন। পুতিন বলেন, ‘আপনি বাইরে থেকে অন্য মানুষের উপর রাজনৈতিক জীবন এবং আচরণের মান চাপিয়ে দিতে পারবেন না।’ রুশ প্রেসিডেন্ট ‘শরণার্থীদের ছদ্মবেশে’ সহ ‘সন্ত্রাসীদের’ আফগানিস্তান থেকে প্রতিবেশী দেশে প্রবেশে বাধা দেয়ার গুরুত্ব তুলে ধরেন। সূত্র : ট্রিবিউন, দ্য গার্ডিয়ান।


1
0
0
0
0
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * আফগানিস্তান * রাশিয়া