মনির কাসেমী ও হাবীবুল্লাহকে বারিধারা মাদ্রাসা থেকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি

 

 

মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী হাবীবুল্লাহ মাহমুদ কাসেমী

হেফাজতে ইসলামের নতুন কমিটি থেকে বাদ পড়া জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মুফতি মনির হোসাইন কাসেমীকে বারিধারার জামিয়া মাদানিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ পদ থেকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে মাদ্রাসার মুহাদ্দিস হাবীবুল্লাহ মাহমুদ কাসেমীকেও। তারা দু’জনেই সহিংসতার মামলায় কারাগারে রয়েছেন।

রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়া ও বিতর্কিত বক্তব্যের কারণ দেখিয়ে গত সোমবার বারিধারা মাদ্রাসার মজলিশে শূরা তাদের অব্যাহতি দেয়। একইসঙ্গে উপাধ্যক্ষ মাসউদ আহমদকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মজলিশে শূরার বৈঠকের কার্যবিবরণী সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। মাদানি সোসাইটি বাংলাদেশের সভাপতি বদিউর রহমানের সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

কার্যবিবরণীতে বলা হয়েছে, ‘মুফতি মনির হোসাইন কাসেমীর রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপ, হেফাজত ইস্যুতে বিতর্কিত হওয়া এবং বিভিন্ন মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি হয়ে কারাবন্দি থাকায় তাকে মুহতামিমসহ (অধ্যক্ষ) সব পদ থেকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেওয়া হলো।’ একই কারণে অব্যাহতি দেওয়া হয় হাবীবুল্লাহকেও।

জামিয়া মাদানিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন হেফাজতের প্রয়াত মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী। তিনি আমৃত্যু বিএনপি জোটের শরিক জমিয়তেরও মহাসচিব ছিলেন। গত বছরের ডিসেম্বরে তার মৃত্যুর পর মাদ্রাসার মুহতামিম পদ নিয়ে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়। এ পদে আসেন মনির হোসাইন কাসেমী। তিনি একাদশ সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে ধানের শীষের প্রতীকে নির্বাচনও করেন।

গত ২১ মে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি হেফাজতের অর্থবিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। তবে ৭ জুন ঘোষিত হেফাজতের নতুন কমিটিতে তার স্থান হয়নি।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন