ফিলিস্তিনের  রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যের জবাবে,’কে কি বলল তা অপ্রাসঙ্গিক’:পররাষ্ট্রমন্ত্রী 

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মঙ্গলবার মোমেন সাংবাদিকদের বলেন, “কোন দেশের কোন অ্যাম্বাসেডর কী বলল, ইট ইজ ইরিলেভেন্ট থিংগ।

“উই মেনটেইন আওয়ার ফরেন পলিসি। কে কী বলল, তাহলে তো আমরা ঝামেলায় পড়ে যেতাম। আমরা সার্বভৌম দেশ। আমরা কী করি, না করি আমরা সিদ্ধান্ত নিব। অন্যে কী বলল, এটা ইরিলেভেন্ট, টোটালি ইরিলেভেন্ট।”

‘ইসরায়েল ব্যতীত বিশ্বের সব দেশের ক্ষেত্রে বৈধ’- বাংলাদেশের পাসপোর্টে লেখা এই বাক্যটি থেকে ‘ইসরায়েল ব্যতীত’ কথাটি বাদ পড়ার খবর সম্প্রতি গণমাধ্যমে আসে।

গাজায় সাম্প্রতিক ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধের মধ্যে বাংলাদেশের পাসপোর্টে এই পরিবর্তনের বিষয়টি নিয়ে গত ক’দিন ধরেই আলোচনা চলছে। ইরসায়েলের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতিতে কোনো পরিবর্তন এসেছে কি না- সেই প্রশ্নও তোলা হচ্ছে।

এর প্রতিক্রিয়ায় সোমবার ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রদূত ইউসুফ সালেহ ওয়াই রামাদান বলেন, পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল প্রসঙ্গ বাদ দেওয়ার বিষয়ে সরকারের যুক্তি মেনে নিলেও এই সময়ে এই খবর শুনে ব্যথিত বোধ করেছেন।

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ সালেহ ওয়াই রামাদান।

তিনি আরও বলেন, “এটা আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। কিন্তু শেষ কথা হল, বাংলাদেশ একটি সার্বভৌম দেশ, এটাকে আমরা সম্মান করি। যদি আপনি আমি এবং অধিকাংশ ফিলিস্তিনি জনগণের অনুভূতির বিষয়ে জিজ্ঞেস করেন, তাহলে আমার অনুভূতি হচ্ছে এটা অগ্রহণযোগ্য।”

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল প্রসঙ্গ বাদ দেওয়া হলেও বাংলাদেশিদের সে দেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা ‘বহাল আছে’ এবং বাংলাদেশের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক পররাষ্ট্র নীতিতেও কোনো পরিবর্তন আসেনি।

রামাদান বলেন, “সার্বভৌম দেশ হিসাবে হিসাবে যে কোনো সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ নিতে পারে। আমরা কেবল সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের অনুরোধ জানাতে পারি এবং আশা করি তারা তা করবে।”

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন