রাশিয়া প্রতি ডোজ টিকার দাম চেয়েছে ৯.৯৫ ডলার

 

 

 

রাশিয়া প্রতি ডোজ স্পুতনিকভি টিকা দশমিক ৯৫ ডলার মূল্যে বাংলাদেশে সরবরাহ করতে চায়।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, দুই দেশের মধ্যে এখনও টিকা কেনার বিষয়ে কোনো চুক্তি সই না হলেও বাংলাদেশ সরকার রাশিয়াকে টিকার দাম কমানোর জন্য চিঠি দিয়েছে।

গত সপ্তাহের প্রথম দিকে রাশিয়ার সরকার একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছে। প্রস্তাবটি বিশ্লেষণ করে বাংলাদেশ সরকার জানিয়েছে যে, দাম নিয়ে আলোচনা করতে হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক শীর্ষ কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা দাম নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছি। তবে স্পুতনিক-ভি এর দুটি ডোজের দাম ফাইজার ও মডার্নার একটি ডোজের চেয়ে কম।’

বাংলাদেশ সরকার এই প্রস্তাবও দিয়েছে যে, যথাসময়ে টিকা সরবরাহ করতে ব্যর্থ হলে রাশিয়ান কর্তৃপক্ষকে এর দায় নিতে হবে।

এই টিকার দুটি ডোজ দেওয়ার মাঝে একটি বিরতি দিতে হবে এবং এ কারণেই যথাসময়ে দ্বিতীয় ডোজ বাংলাদেশে পৌঁছানো উচিত বলে জানান এই কর্মকর্তা।

প্রস্তাবনায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, টিকার দামের ৫০ শতাংশ অগ্রিম দেওয়া হবে।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক গণমাধ্যমকে জানান, গত সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে চুক্তির দলিল পেয়েছেন তারা।

গণমাধ্যম প্রতিবেদন অনুসারে, অন্যান্য দেশে প্রতি ডোজ স্পুতনিক-ভি এর দাম প্রায় ১০ ডলার।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শিগগির চুক্তিটি সই করার চেষ্টা করছি।’

সরকার স্থানীয় ওষুধ উৎপাদনকারীদের সঙ্গে যৌথভাবে স্পুতনিক-ভি উৎপাদনের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে।

গত ২৭ এপ্রিল দেশে স্পুতনিক-ভি এর জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয় সরকার।

ভারত সরকার সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের রপ্তানি নিষিদ্ধ করার পর বাংলাদেশে টিকাদান কর্মসূচি মারাত্মকভাবে ধাক্কা খায়।

ভ্যাকসিনের ঘাটতির কারণে গত ২৬ এপ্রিল থেকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া স্থগিত রেখেছে সরকার।

তবে স্পুতনিক-ভি এর জরুরি ব্যবহারের অনুমোদনের অর্থ হলো- টিকাটি আমদানি ও প্রয়োগে কোনো বাধা নেই। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, রাশিয়ার টিকা আসার পর তারা পুনরায় প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া শুরু করতে পারেন।

রাশিয়ার টিকা প্রায় ৬০টি দেশে নিবন্ধিত হয়েছে এবং বর্তমানে কয়েকটি দেশে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে।

রাশিয়া গত বছরের আগস্টে নিজ দেশে ব্যবহারের জন্য স্পুতনিক-ভি টিকার অনুমোদন দেয়। দেশটি দাবি করেছে যে এর কার্যকারিতা প্রায় ৯১ শতাংশ।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন