মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের হামলায় কমপক্ষে ১৩ সেনা নিহত

মিয়ানমারের চিন রাজ্যে প্রচণ্ড লড়াই হয় সেনাবাহিনী ও স্থানীয় প্রতিরোধকারীদের মধ্যে। সোম ও মঙ্গলবার রাজ্যের মিন্দাতে সংঘটিত এ লড়াইয়ে বেসামরিক লোকদের হাতে কমপক্ষে ১৩ জান্তা সদস্য নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। জানিয়েছে ইরাবতী। এএফপি দেশটির কারেন রাজ্যে একটি সেনাঘাঁটি দখল করে নিয়েছে বিদ্রোহীরা। পাহাড়ঘেরা চিন রাজ্যের মিন্দার একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, ‘জান্তারা এরই মধ্যে আরও শক্তি বাড়িয়ে মরিয়া হয়ে সেখানে আক্রমণ চালাচ্ছে। স্থানীয় নাগরিকরা সোমবার জান্তাদের পথ আটকে দিয়েছিল। সেখান থেকেই সংঘর্ষের সূত্রপাত।’ সোমবার চিন রাজ্যের সীমান্তবর্তী মিন্দাত ও ম্যাগওয়ে অঞ্চলে জান্তাদের আক্রমণ প্রতিহত করে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন। মঙ্গলবার সকালে, বেসামরিক যোদ্ধারা জান্তার নয়টি সমরাস্ত্রবোঝাই ট্রাক আটকে দেয়। ট্রাকগুলোতে আগুনও লাগিয়ে দিয়েছিল তারা। এ সংঘর্ষে বেসামরিক লোকজনের হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। সেনাপরিচালিত সংবাদপত্রগুলো এ ঘটনা স্বীকার করে জানিয়েছে, ‘স্থানীয় লোকজন আগ্নেয়াস্ত্র ও বন্দুক দিয়ে তাদের আক্রমণ করেছিল এবং তাদের সামরিক যান পুড়িয়ে দিয়েছিল।’ আটককৃত ছয়জন সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীকে পুলিশ মুক্তি দিতে অস্বীকার করার পরে ২৪ এপ্রিল মিন্দাতে লড়াই শুরু হয়েছিল। ওই রাতের লড়াইয়ে তিন পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে। মিন্দাতের একজন বাসিন্দা জানান, ‘আমরা আটককৃতদের মুক্তি দিতে বলেছিলাম, কিন্তু তারা তা করবে না। উত্তেজনা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সন্ধ্যায় সেনাবাহিনী এক বাইকচালককে গুলি করে।’ এখান থেকেই সংঘর্ষের সূত্রপাত বলে জানান ওই বাসিন্দা। মঙ্গলবার মিন্দাতের সব দোকানপাট বন্ধ ছিল এবং রাস্তাগুলো নির্জন যেন ধুধু মরুভূমিতে পরিণত হয়।

এদিকে থাইল্যান্ড সীমান্তবর্তী মিয়ানমার সেনাবাহিনীর একটি ক্যাম্প দখলে নিয়েছে কারেন বিদ্রোহীরা।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী দেশটির ক্ষমতা দখল করে নেওয়ার পর সেনা শাসনের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে আসে দেশটির সাধারণ মানুষ। বিক্ষোভকারীদের সমর্থনে আন্দোলন গড়ে তোলে দেশটির শক্তিশালী কারেন বিদ্রোহীরা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ