মাস্ক না পরায় থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর জরিমানা

 

সরকারের একটি জরুরি বৈঠকে মাস্ক না পরায় থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চানওচাকে ছয় হাজার বাথ (১৯০ মার্কিন ডলার) জরিমানা করা হয়েছে।

সোমবার সকালে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় বলে জানায় ওয়াশিংটন পোস্ট।

প্রায়ুথ তার ফেসবুক পাতায় বৈঠকের একটি ছবি পোস্ট করেন। যেখানে দেখা যায়, মাস্ক ছাড়াই তিনি বৈঠকে অংশ নিচ্ছেন। যদিও ছবিটি পরে সরিয়ে নেওয়া হয়।

ওই ছবি প্রকাশের পর প্রায়ুথকে জরিমানা করা হয় বলে জানান ব্যাংককের গভর্নর অশ্বিন ওয়ানমুয়াং।

অশ্বিন সোমবার তার অফিসিয়াল ফেসবুক পাতায় এ তথ্য জানিয়ে লেখেন, ‘‘আমি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি এটা কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে আরোপিত স্বাস্থ্যবিধির লঙ্ঘন। তিনি জরিমানা দিতে রাজি হয়েছেন।”

প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ এ বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেননি। তবে ফেসবুকে পোস্ট করা বৈঠকের ছবিতে একমাত্র তাকেই মাস্ক ছাড়া দেখা যায়। বাকি সবার মুখে মাস্ক ছিল।

 

অশ্বিন জানান, প্রধানমন্ত্রী ব্যাংককের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের তিনি মাস্ক পরার স্থানীয় নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন কিনা সেটা নিয়ে তদন্ত করতে বলেছেন।

থাইল্যান্ডে সোমবার দুই হাজার ৪৮ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়। যদিও অভিযোগ আছে, দেশটির সরকার করোনাভাইরাস সংক্রমণ এবং মৃত্যু নিয়ে সঠিক তথ্য দিচ্ছে না।

রাজধানী ব্যাংককসহ থাইল্যান্ডের ‍৪৮টি প্রদেশে মাস্ক পরার বাধ্যবাধকতার সময় বাড়ানো হয়েছে এবং নিয়ম আরো কঠোর করা হয়েছে। সেখানে এখন একমাত্র বসতবাড়ির ভেতর ছাড়া সব জায়গায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। এমনকি ব্যক্তিগত গাড়িতে একজনের বেশি আরোহী থাকলেও মাস্ক পরতে হবে।

সোমবার থেকেই নতুন এই নিয়ম কার্যকর হয় এবং খুব সম্ভবত প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথই প্রথম ব্যক্তি যিনি ওই আইনে প্রথম জরিমানা দিতে যাচ্ছেন। যদিও তাকে সর্বোচ্চ জরিমানা ২০ হাজার বাথ (৬৩৯ মার্কিন ডলার) দিতে হচ্ছে না।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন