তুরাগের রানাভোলা এলাকায় ভয়াবহ আগুন।

জুয়েল ইসলাম পাভেল
তুরাগের রানাভোলা এলাকায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আজ (বুধবার) বেলা আনুমানিক ১২টারদিকে ঐ এলাকার মোস্তফা মেম্বারের বস্তিতে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে প্রায় দেড় শতাধিক ঘর পুড়ে যায় এবং মালামাল ও নগদ অর্থের ক্ষতি হয়েছে বলে জানান ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো।
আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুতই ঘটনাস্থলে উত্তরা ফায়ার সার্ভিস ও টঙ্গী ফায়ার স্টেশনের দমকল বাহিনীর কর্মীরা আসে। ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিটের প্রায় ঘন্টাব্যাপী চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা আনে। এ ব্যাপারে উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার সৈয়দ মনিরুল ইসলাম জানান, আমরা টিম নিয়ে পুরোপুরিভাবে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে পেরেছি। খবর পাওয়ার পরই আমরা খুব দ্রুত এখানে পৌঁছে কাজ শুরু করি। ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনাসহ আগুন থেকে আশপাশের ঘরবাড়িগুলোকে রক্ষা করতে পেরেছি।’ আগুন লাগার কারণ এখনও খুঁজে বের করা যায়নি বলে প্রতিবেদককে জানান তিনি।
তবে আগুন লাগার কারণ হিসেবে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই বস্তির সামনেই ফেলে দেয়া লেপ-তোষক ও ময়লা আগুনে পোড়ানো হতো। সেই ময়লা পোড়ানোর আগুন থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়। দুপুর ১২টার দিকে দক্ষিণপাশের একটি অংশে আগুন লাগে এবং মুহুর্তের মধ্যেই তা ছড়িয়ে পড়ে পুরো বস্তিজুড়ে।
অপরদিকে, ঐ বস্তির বৈদুত্যিক সংযোগটি বৈধ ছিল কিনা? এ ব্যাপারে বিদ্যুতের লোকজনই ভালো বলতে পারবেন বলে জানান সৈয়দ মনিরুল ইসলাম। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের এক সদস্য জানায়, বস্তির যে স্থানটিতে ময়লা পোড়ানো হতো সেখানকার বৈদ্যুতিক ত্রুটি থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে।
এদিকে, খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসান। এ সময় তিনি প্রতিবেদককে বলেন, আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে সহায়তার জন্য অত্র এলাকার কমিশনারকে নির্দেশ প্রদান করেছি এবং আমার পক্ষ থেকে পঞ্চাশ বস্তা চাল উনাদের জন্য অনুদান ঘোষণা করে গেছি। এখনি আমি তাৎক্ষণিক তা (চাল) পাঠিয়ে দিচ্ছি। আশা করি এই বিপদ বেশি সময়ের না, বিপদ অল্প সময়ের। দুর্যোগ কেটে যাবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন