ভারতে ভালো চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে ৩ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা:

ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত থেকে তিন নারীকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। মহেশপুর উপজেলার ভারতীয় সীমান্তবর্তী নেপা গ্রাম থেকে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ভারতে পাচার করার সময় একটি বাড়িতে রেখে ওই তিন নারীকে ধর্ষণ করা হয় বলে উদ্ধার কৃত নারীরা জানান। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মহেশপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মাহাবুবুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে সোমবার রাতে নেপা গ্রামের লালন মিয়ার বাড়ি থেকে ৩ নারীকে উদ্বার করা হয়।

উদ্বার তিন নারী আমাদের জানায়, তারা গাজীপুরের একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে কর্মরত ছিলেন। মহেশপুর উপজেলার সলেমানপুর গ্রামের আব্দুল গনির ছেলে সুজন একই গার্মেন্টসে কাজ করতেন। সেই সুবাদে সুজন ভারতে তাদের ভালো বেতনের চাকরির লোভ দেখিয়ে সলেমানপুর গ্রামের ইব্রাহীম হোসেনের ছেলে কদম আলীর বাড়িতে নিয়ে আসেন। পরে তাদের বাঘাডাঙ্গা গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে হৃদয়, সলেমানপুর গ্রামের গোলাম নবীর ছেলে আব্দুস সোবাহান ও বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মফিজের হাতে তুলে দেয়। এই তিনজন তাদের ভারতে পাচারের দায়িত্ব নেয়।

ওই নারীদের অভিযোগ, গত ৪ জুলাই থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত তাদের বিভিন্ন বাড়িতে আটকে রেখে পাচারকারী চক্র তাদের একাধিকবার ধর্ষণ করে।

ওসি আরও জানান, মহেশপুর ৫৮ বিজিবির পক্ষ থেকে সোমবার রাতে থানায় একটি এজাহার দাখিল করা হয়েছে। ওই তিন নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * ভারতে ভালো চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে ৩ নারীকে ধর্ষণ
সর্বশেষ সংবাদ