মাহিয়া মাহি গ্রেফতার

 

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

গ্রেফতার হয়েছেন ঢাকাই সিনেমার নায়িকা মাহিয়া মাহি । শনিবার ১৮ই মার্চ বেলা ১২টার দিকে তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মোল্লা নজরুল ইসলাম। ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। শুক্রবার মাহিয়া মাহি ও তার স্বামী রকিব সরকারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দুটি করে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। ওই দিন রাতে বাসন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রোকন মিয়া বাদী হয়ে এ মামলা করেন। তবে তার স্বামী রকিব সরকার পলাতক রয়েছে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার মিডিয়া মোঃ আসাদুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জিএমপির কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ও তার স্বামী রকিব সরকারকে হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে মিথ্যা, বানোয়াট, আক্রমণাত্মক, কুরুচিপূর্ণ ও মানহানিকর তথ্য প্রচার করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর অপরাধ করেছেন। বাসন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ রোকন মিয়া তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি করেন।

এরই মধ্যে পুলিশের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলাটি ছাড়াও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি সরকার ও তার স্বামী রাকিব সরকারের বিরুদ্ধে কোটি টাকার জমি দখল ও জমিতে কাজ করতে গেলে বাধা প্রদান ও মারধরের অভিযোগে আরেকটি মামলা দায়ের করেন স্থানীয় ইসমাইল হোসেন। এ মামলায় মাহি ও তার স্বামী রাকিব সরকারসহ ২৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার ভোরে স্বামীর সঙ্গে ওমরাহ পালনরত মাহি সৌদি আরবের মক্কা শহর থেকে ফেসবুক লাইভে রকিবের গাড়ির শোরুম ভাঙচুর ও হামলার অভিযোগ করেন। মাহি বলেন, ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের পূর্ব পাশে ‘সনিরাজ কার প্যালেস’ নামে তার স্বামীর একটি গাড়ির শোরুম রয়েছে। সেখানে দুর্বৃত্তরা হামলা করেছে। শুক্রবার ভোরে মাহি ফেসবুকে লাইভে এসে ঘটনার বিস্তারিত জানান। এর পর তিনি ফেসবুকে বেশ কয়েকটি পোস্ট করেন এই হামলা নিয়ে।

মাহির অভিযোগ, ইসমাইল ওরফে লাদেন ও মামুন সরকার নামে প্রতিপক্ষ তাদের শো রুম দখল করে নিয়েছে আর এই কাজে সহযোগিতা করেছেন জিএমপি কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম যিনি দেড় কোটি টাকার বিনিময়ে গাড়ির শোরুম দখল করে দিচ্ছেন। মাহি আরও জানান, দেশে ফিরে ১৮ মার্চ শনিবার বিকাল ৫টায় ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজ সংলগ্ন সনিরাজ কার প্যালেসে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘটনার বিস্তারিত তিনি জানাবেন।

শুক্রবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে ইসমাইল হোসেন  পাল্টা  অভিযোগ করে বলেন , ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের উত্তর পাশে তার ও মামুন সরকারের মালিকানাধীন সাড়ে ৩২ শতাংশ জমি রয়েছে। চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির স্বামী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও বর্তমানে গাজীপুর মহানগরীর বাসন মেট্রো থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রাকিব সরকার প্রায় ৫ বছর ধরে জোরপূর্বক দখল করে ‘সনিরাজ কার প্যালেস’ নামে একটি গাড়ির শোরুম স্থাপন করেছেন। শুক্রবার জমির মালিক মামুন সরকার জমিতে কাজ করতে গেলে রাকিব সরকার নিজস্ব বাহিনীর লোকজন দিয়ে জোরপূর্বক নির্মাণ সামগ্রীসহ লাখ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। ইসমাইল হোসেনের একটি রড বাইন্ডিং মেশিন ভেঙে ফেলে। এ সময় তার লোকজন এসে ইসমাইল হোসেন ও তার লোকজনকে মারধর করে। এতে তিনিসহ আরও ৩ জন আহত হন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেকে শুরু করে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে তিনি এ বিষয়ে অভিযোগ দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি রাকিব সরকারের বিরুদ্ধে জমি দখল, মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজীসহ নানা অপকর্মের ফিরিস্তি লিখিত আকারে তুলে ধরেন। রাকিব সরকারের বিরুদ্ধে খুন, ধর্ষণ ও অস্ত্র মামলাসহ আরও অভিযোগ রয়েছে বলে দাবি করেন ইসমাইল হোসেন। ইসমাইল হোসেন অবিলম্বে রাকিব সরকারের অত্যাচার থেকে রক্ষা করার জন্য ও জোরপূর্বক দখল করা জায়গা ফিরে পেতে স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পুলিশ কমিশনার মোল্লা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘শুক্রবার ভোরে বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুপক্ষই পালিয়ে যায়। তাদের জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ইসমাইল হোসেনসহ তার পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। তারা চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে আহত ইসমাইল বাদী হয়ে ২৮ জনের বিরুদ্ধে বাসন থানায় একটি মামলা করেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, ফেসবুক লাইভে মানহানিকর তথ্য প্রচার করে আইনশৃঙ্খলা অবনতি ঘটানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাহিয়া মাহি ও তার স্বামী রকিব সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) বাসন থানায় মামলাটি করা হয়। মামলায় প্রধান আসামি রকিব সরকার এবং ২ নম্বর আসামি মাহিয়া মাহি।

কয়েক মাস আগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর-নাচোল-ভোলাহাট) আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা নিয়ে ব্যাপক আলোচনায় আসেন মাহিয়া মাহি। এলাকায় গণসংযোগও করেন। তবে শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের মনোনয়ন পাননি এই ঢাকাই নায়িকা। গত ১ ফেব্রুয়ারি এ আসনে উপ-নির্বাচনের ভোট হয়।

 

 

 

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বিষয়: * মাহিয়া মাহি গ্রেফতার
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ