ময়মনসিংহে ৩০০ বছরের পুরাতন ” সারিন্দা ”  নিয়ে রেজাউল করিম আসলামের প্রদর্শনী 

রাশিদ আহমেদ নিসর্গ, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:-
ময়মনসিংহে আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে এশিয়ান মিউজিক মিউজিয়াম আয়োজন করেছে  ” শতবর্ষী সারিন্দা প্রদর্শনী “।
এই প্রদর্শনীতে স্হান পেয়েছে সংগ্রাহক রেজাউল করিম আসলামের  সতের শতাব্দী থেকে উনিশ শতাব্দীর সংগ্রহিত ১২টি দূলর্ভ  সারিন্দা । যার মধ্যে রয়েছে পাটগ্রাম, বুড়িমারি, কুড়িগ্রাম থেকে রহমান ফকির (৭৫)  থেকে পাওয়া ৩৬৫ বছরের পুরানো সারিন্দা।   কালীররহাট, লালমনিরহাট, গুনধর বাবুর কাছ থেকে পাওয়া ৩০০ বছরের পুরানো সারিন্দা । দেবীরপাট, দূর্গাপুর, লালমনির হাট মনা  সাধুর কাছ থেকে পাওয়া ২৫০ বছরের পুরানো সারিন্দা।  এছাড়াও ময়মনসিংহের গৌরীপুরের নাও ভাঙার চরের মোক্তার হোসেন ফকিরের (৫১) কাছথেকে পওয়া চার প্রজন্মের ব্যবহৃত দুইশবছরের পুরানো সারিন্দা,  যেটি ব্যবহার করতেন মোক্তার ফকিরের বাবা নাম রমজানী আলী ফকির, দাদার নাম ইয়াছিন ফকির তার বাবা জমির ফকির।  হালুয়াঘাট থেকে প্রাপ্ত কীর্তিনিয়া মনীন্দ্র ওস্তাদজীর ব্যবহৃত ১৫০ বছরে পুরানো সারিন্দা।
রেজাউল করিম আসলাম একজন মুলত বাদ্যয্ন্ত্র ও লোকজ সংস্কৃতি  সংগ্রাহক,  তার সংগ্রহে রয়েছে লুপ্তপ্রায়,  বিলুপ্ত ও চলমান   ৬০০ বাদ্যযন্ত্র। তিন পুরুষ ধরেই এই বাদ্যযন্ত্র ব্যবসার সাথে বংশ পরম্পরায়  জড়িত আসলামের পরিবার ।
প্রর্দশনী নিয়ে আসলাম বলে,  তৈরীকারক, বাদক, উপকরন সবই হারিয়ে যাচ্ছে। একসময় সারিন্দা ছিলো খুবই মুল্যবান, যারা বাজাতো তারাও ছিলেন মরমী লোক।  এগুলো হারানোর বা নষ্ট হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য এই উদ্যোগ ।
বাংলাদেশের বিভিন্ন অন্ঞ্চলে যেসব সারিন্দা পাওয়া যায় তা সাধারনত ছুতার বা কাঠ মিস্তিরির দ্বারা বাদকের নির্দেশানুযায়ী তৈরী। কেউ কেউ আবার নিজের সারিন্দা নিজেই বানিয়ে নিতেন কুড়াল,  খুন্তা, বাইশা, বাটাল দিয়ে। সেক্ষেত্রে মনপবন, নিম, চন্দন, লোহা,  শাল, বৈলাম ও মেহগিনি কাঠ ব্যবহার করা হতো।
১৮ মে থেকে ২০ মে, তিনদিনব্যাপী এই আয়োজনের  সাথে রয়েছে পুঁথি পাঠ, বাউল বৈঠক,  শিশুদের সংগীত ও যন্ত্রসংগীত।
আয়োজনটির সাথে কাজ করছে তার দুই মেয়ে সমন্বয়করী হিসেবে জয়িতা অর্পা ও শৈল্পিক নির্দেশনায় জাওয়াতা আফনান।
আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবসের এই আয়োজনের সহোযোগিতায়  রয়েছে নোভিস ফাউন্ডেশন ও ময়মনসিংহ বাউল সমিতি ।
 ঈদগাহ মাঠের বিপরীতে কাঁচিঝুলি রোডস্থ   ব্যাপ্টিস্ট চার্চ গীর্জার নীচ তলায় “এশিয়ান মিউজিক মিউজিয়াম ” গ্যালারী হলে প্রদর্শনী  প্রতিদিন সকাল ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৮ টা পর্যন্ত সকলের জন্য উম্মুক্ত।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ