অস্তিত্ব হুমকিতে পড়লেই পরমাণু হামলা

 

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ টানা এক মাসেরও বেশি সময় যাবৎ ইউক্রেনের ভূখণ্ডে রাশিয়ার সামরিক অভিযান চললেও এখনো উত্তেজনা প্রশমনের কোনো লক্ষণই যেন নেই। এই এক মাসেই কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে পূর্ব ইউরোপের দেশটির বিভিন্ন শহর। উত্তেজনার পারদ বাড়তে থাকায় বাড়ছে রুশ পারমাণবিক  অস্ত্রের ব্যবহারের আশঙ্কাও।

যদিও মস্কোর দাবি, রাশিয়ার অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়লেই কেবল পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হবে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সরকারি বাসভবন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এক সাক্ষাৎকারে কথাটি বলেছেন। অবশ্য সপ্তাহখানেক আগেও তিনি প্রায় একই কথা জানিয়েছিলেন। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স তথ্যটি জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার (২৮ মার্চ) পিবিএসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছিলেন, ইউক্রেনের সঙ্গে বর্তমান সংঘর্ষের কারণে নয় বরং ‘রাষ্ট্রের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়লেই’ কেবল পারমাণবিক অস্ত্রের আশ্রয় নেবে রাশিয়ার সেনাবাহিনী।

সাক্ষাৎকারে পেসকভ দাবি করেন, ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের কোনো ফলাফল অবশ্যই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের কারণ হবে না।

তিনি মনে করেন, নিরাপত্তার প্রসঙ্গে আমাদের একটি নীতিমালা রয়েছে। সেখানে খুব স্পষ্টভাবে বলে দেওয়া আছে যে, রাষ্ট্রের অস্তিত্বের জন্য হুমকি থাকলেই কেবল আমরা (পারমাণবিক অস্ত্র) ব্যবহার করতে পারি। আমরা আসলেই দেশের অস্তিত্বের জন্য হুমকি দূর করতে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করব।

এর আগে গত ২২ মার্চ মার্কিন মিডিয়া সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দিমিত্রি পেসকভ বলেছিলেন, রাশিয়া তখনই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করবে যদি তার অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়ে।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * ইউক্রেন * রাশিয়া * রুশ পারমাণবিক
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ