গাজীপুরে ময়লায় পরিবেশ দূষিত, মানববন্ধন এলাকাবাসীর

 

 

 

গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার মির্জাপুর ইউনিয়নের পূর্ব ডগরী এলাকায় রাস্তার পাশে ময়লা ফেলে পরিবেশ দূষিত করায় মানববন্ধন করেন এলাকাবাসী। আজ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় মানববন্ধন করেন এলাকাবাসী। জানা যায়, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ২২নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন দোকানের ময়লা রাসেল মোল্লার নেতৃত্বে রাতের আধারে রাস্তার পাশে ফেলে যায়। এলাকাবাসী বিভিন্ন সময় ২২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোশাররফ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করেও কোন প্রতিকার পাননি। ময়লার দুর্গন্ধের কারণে রাস্তায় চলাচল করতে পারেননা তারা। এমনকি বাড়িতেও গন্ধে টেকা মুসকিল হয়। যারা বাসা ভাড়া দিতেন, দুর্গন্ধে ভাড়াটিয়া থাকেনা। পাশে মাদ্রাসায় লেখাপড়া করতে সমস্যা হয়। মানববন্ধনে মির্জাপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামিলীগের সভাপতি প্রার্থী শরিফুল ইসলাম বলেন, রাসেল মোল্লা রাতের আধারে রাস্তার পাশে ময়লা ফেলায় আমরা রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারি না। বাড়িতে থাকতে পারছিনা। রাস্তা ভেঙে যাচ্ছে, এলাকার ফসলি জমি নষ্ট হচ্ছে। আমরা বিভিন্ন সময় ময়লা ফেলার প্রতিবাদ করি। ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোশাররফ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করি কিন্তু কোন কাজ হয়নি। আমরা এর প্রতিকার চাই। আমরা আপনাদের মাধ্যমে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ডগরী এলাকার শাহজালাল বলেন, আমরা মানুষ, গরু- ছাগল না। এমন গন্ধের মধ্যে টেকা যায়না। করোনার চেয়েও বেশি শক্তিশালী এই গন্ধ। একই এলকার কামরুন্নাহার, বাদল মুন্সি ও শামীম আহম্মেদ বলেন, আমাদের বাড়িতে এই গন্ধে থাকতে পারিনা। ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার ক্ষতি হচ্ছে। বাড়ির ভাড়াটিয়া থাকেনা এবং এই গন্ধে আমরা বিভিন্ন ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছি। ময়লায় মাছি বসে এই মাছিগুলো আমাদের খাবারে বসে এতে আমরা পেটের অসুখসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছি। আমরা এর প্রতিকার চাই। এব্যাপারে রাসেল মোল্লার মুঠোফোনে যোগাযোগ করলেও তিনি কল রিসিভ না করায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি। এব্যাপারে মির্জাপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার আসকর আলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ২ বছর আগে পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে পর্যবেক্ষণ করতে আসেন। আমরা সবকিছু দেখিয়ে দিয়েছি। তারা বলেছিলো ব্যবস্থা নিবে, পরে কি ব্যবস্থা নিয়েছে তা জানা নেই। যাদের জমি তারাই ময়লা ফেলে। আমরা কি করতে পারি??? এব্যাপারে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোশাররফ হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমার ২২ নং ওয়ার্ডের সমস্ত ময়লা প্রথমে রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় ফেলি পরে সেগুলো কোনাবাড়ি এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। তবে আমার ওয়ার্ডে না হলেও ডগরি, জাঙ্গালিয়াপাড়া এলাকার মানুষ এই ময়লার দুর্গন্ধে খুবই কষ্টে আছে। জমির মালিক অন্যায় ও অবৈধ ভাবে ময়লা ফেলে। এটা তাদের চরিত্রগত অভ্যাস। তার জমি বলে সে পরিবেশ দূষণ করতে পারেনা।

এব্যাপারে গাজীপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নয়ন মিয়ার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে ময়লার ব্যাপারে ও মানববন্ধন সম্পর্কে জানিয়ে পরবর্তী ব্যবস্থার ব্যাপারে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এসমস্ত ময়লা পরিস্কারের দায়িত্ব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের। আমরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিবো। এব্যাপারে মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক মুসুল্লির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে যেহেতু বলেছেন আমার দায়িত্ব তাহলে আগামীকাল গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে ময়লা ফেলা বন্ধ করে দিবো। কে ময়লা ফেলে সে বিষয়ে আমি জানিনা, তবে সব বন্ধ করে দিবো।।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * এলাকাবাসী * গাজীপুর * ময়লায় * মানববন্ধন
লাইভ রেডিও
সর্বশেষ সংবাদ