ডোপ টেস্ট করা হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ডোপ টেস্টের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। 

একাধিক সিন্ডিকেট সদস্য জানান, বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট মাদকাসক্তদের চিহ্নিত করতে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ঢাবির প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, সভায় একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে, যা এই পরীক্ষণ প্রক্রিয়া, সুযোগ-সুবিধা এবং এর বাস্তবায়নের নীতিমালা প্রণয়ন করবে।

ডোপ পরীক্ষার নীতিমালা প্রণয়নের জন্য গঠিত কমিটির প্রধান করা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ (সিন্ডিকেট সদস্য) টিটো মিয়াকে। 

 

টিটো মিয়া বলেন, “এই পদ্ধতির আওতায় প্রতিবছর শিক্ষক নিয়োগ এবং নতুন শিক্ষার্থী ভর্তির সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে ডোপ পরীক্ষা করা হবে।

 

উপরন্তু, পর্যায়ক্রমে বছরে একবার শিক্ষার্থীদের ডোপের জন্য পরীক্ষা করা হতে পারে। তবে, সক্ষমতা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডোপ পরীক্ষা করার ক্ষমতা নেই। এর জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি এবং জনবল লাগবে। আমরা কাজ করছি ডোপ পরীক্ষাটা বিশ্ববিদ্যালয়ে নাকি অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানে করা হবে, কিভাবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা যাবে তা নিয়ে”। 

 

রোববার জাতীয় সংসদে স্বরাষ্ট্র বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায়, সরকারি কর্মকর্তা -কর্মচারীদের প্রতি বছর একবার করে ডোপ টেস্ট করানোর আহ্বান জানানো হয়। একইভাবে কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়েও এই প্রক্রিয়া চালুর আহ্বান জানানো হয়। 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় * মাদক পরীক্ষা * সিন্ডিকেট