হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশানের বাসায় সিআইডির তল্লাশি

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্যপদ থেকে বহিষ্কৃত হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভিযান চালিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। হেলেনার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের স্বপক্ষে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহে এ অভিযান চালানো হয় বলে জানানো হয়েছে।

শনিবার বিকাল পৌনে চারটার দিকে এ অভিযান শুরু হয়। শেষ হয় সন্ধ্যা ৭টার দিকে। এসময় তার বাসা থেকে বেশ কিছু কাগজপত্র, পাসপোর্ট, ব্যাংকের তথ্যসহ ২টি ল্যাপটপ জব্দ করে। বাড়িতে থাকা ৩ গৃহকর্মীকে হেলেনার মেয়ে ও মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

অভিযানের বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজাদ রহমান।

সিআইডি কর্মকর্তারা জানান, হেলেনা জাহাঙ্গীর এখন সিআইডির হেফাজতে। তদন্তের স্বার্থেই এ তল্লাশি। হেলেনা জাহাঙ্গীর ছাড়াও চিত্র নায়িকা পরীমনি, মডেল পিয়াসা ও মৌ আক্তারের বিরুদ্ধে করা মোট সাত মামলার তদন্ত করছে সিআইডি। গত ২৯ জুলাই মধ্যরাতে হেলেনার গুলশানের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে র‍্যাব। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ ৪ মামলায় তাকে ৮ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত ৮ টায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব। দীর্ঘ প্রায় চার ঘণ্টা অভিযান শেষে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করে র‍্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিদেশি মদ, অবৈধ ওয়াকিটকি সেট, চাকু, বৈদেশিক মুদ্রা, ক্যাসিনো সরঞ্জাম ও হরিণের চামড়া উদ্ধার করা হয়। আটকের পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‍্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

পরবর্তীতে শুক্রবার (৩০ জুলাই) দিবাগত রাত ১২টার দিকে র‍্যাব-৪ এর একজন পরিদর্শক বাদী হয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন আইনের ৩৫, ৫৫ ও ৭৩ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন। এর আগে একইদিন সকালে গুলশান থানায় র‍্যাব বাদী হয়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গের সম্মানহানি করার অপচেষ্টার অভিযোগে গুলশান থানায় দুটি মামলা দায়ের করে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
বিষয়: * সি আই ডি * হেলেনা জাহাঙ্গির