ইংল্যান্ড-ডেনমার্ক সেমিফাইনাল


                    ফাইনালে উঠতে কেইনদের সামনে বড় বাধা ডেনমার্ক। ছবিগেটিইমেজেস

জার্মানিকে হারিয়ে ইংল্যান্ড ফুটবলে নতুন হাওয়া লেগেছে। সেখানকার ফুটবল দর্শক হতে শুরু করে ইংল্যান্ড ফুটবলারদের ঘরে ঘরে অন্যরকম এক আনন্দ বইছে। সবার চোখে এখন ট্রফির স্বপ্ন। সেই স্বপ্ন পূরণ করতে আজ সামনে বড় বাধা ডেনমার্ক। লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় ইউরোর দ্বিতীয় সেমিফাইনালে খেলবে ইংল্যান্ড এবং ডেনমার্ক। ম্যাচটি দেখাবে সনি টেন-২।

ওয়েম্বলিতে আজ ৬০ হাজার দর্শক হাজির হবেন। ডেনিশদের উড়িয়ে দেওয়ার খুনে মানসিকতা নিয়ে নামবে ইংলিশরা।

দুর্দান্ত ছন্দে আছে ইংল্যান্ড। ১৯৬৬ সালের পর এই প্রথম নকআউটে জার্মানিকে হারিয়েছে তারা। রোমের কোয়ার্টার ফাইনালে তো ইউক্রেনকে ৪-০-তে উড়িয়ে দিয়েছেন গ্যারেথ সাউথগেটের শিষ্যরা। গ্রুপ পর্বে ছন্দে না থাকলেও নকআউটে দুর্দান্ত খেলছে হ্যারি কেন-স্টার্লিং জুটি। ইংল্যান্ডের মূল শক্তি তাদের রক্ষণ। হ্যারি ম্যাগুয়ের, জন স্টোন্সদের নিয়ে গড়া রক্ষণকে টপকে এখনও কেউ ইংল্যান্ডের জালে বল পাঠাতে পারেনি।

তবে ফাইনালের চাপটা টের পাচ্ছে ইংল্যান্ড। ইংলিশ অধিনায়ক হ্যারি কেইনতো বলেই দিলেন, ‘হয় এবার, নাহলে কখনোই না।’

কোচ সাউথগেটও আত্মবিশ্বাসী, ‘সব বাধা চূর্ণ করেছি। এখন আমাদের সুবর্ণ সুযোগ। যেহেতু ইউরো ফাইনালে কখনো উঠতে পারিনি, সেটি করতে পারলে বিষয়টি আরও রোমাঞ্চকর হবে।’

দুই দলের আগের পরিসংখ্যান এগিয়ে রাখছে ইংল্যান্ডকে। ১৯৪৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২১ বার মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ড ও ডেনমার্ক। ইংলিশদের ১২ জয়ের বিপরীতে ডেনিশদের চার জয় এবং পাঁচ ম্যাচ হয় ড্র। গত অক্টোবরে ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডকে ১-০ গোলে পরাজিত করেছিল জুলমান্ডের শিষ্যরা। তবে ডেনমার্ক নিয়ে স্বস্তিতে নেই ইংল্যান্ড। কারণ বহু কাঠখড় পুড়িয়ে সেমিতে এসেছে ডেনমার্ক।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন