বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের নতুন ইতিহাস সৃষ্টি হল

দিনটা ছিলো অন্য রকম। কেমন অন্য রকম সেটা ভাষায় বুঝাতে পারবো না।  আমি জানি না কেউ ভিডিও করেছে কিনা । আপনারা দেখেছেন কিনা কতটা সম্মান জানানো হয়েছে আমাদের। এটা শুধু রেহানা মরিয়ম নূর এর সঙ্গে জড়িতদের একার সম্মান নয়, এটা আমাদের পুরো বাংলাদেশের সম্মান। আমরা দেশকে সঙ্গে করে নিয়ে এসেছি।’ কান্না জড়িত গলায় কথাগুলো জানাচ্ছিলেন অভিনেত্রী আজমেরি হক বাঁধন।

বিশ্বের অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ আসর কান চলচ্চিত্র উৎসবে বুধবার  বিকালে প্রশংসিত হয়েছে বাংলাদেশের সিনেমা ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের পরিচালনায় সিনেমাটি কানে প্রদর্শীত হওয়ার পর ‘স্ট্যান্ডিং ওভেশন’ পেয়েছে।  সে সময়টার একটা ভিডিও ক্লিপস ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যারা ক্লিপসটি দেখেছেন তারা আনন্দে কেঁদে ফেলা অন্য এক বাঁধনকে দেখতে পেয়েছেন। সঙ্গে আবেগ আর উচ্ছাস চেপে রাখা সাদসহ পুরো টিমকে দেখেছেন।

কানে উপস্থিত সবার হাত তালিতে বাঁধন কাঁদলেও হেসেছে বাংলাদেশ। এতোদিন  বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে প্রশংসা পাওয়া ভিনদেশি সিনেমার খবর এসেছে দেশের গণমাধ্যমে। দেশের মানুষের ভেতরে তখন গোপন আক্ষেপ ছিলো- কবে আমাদের সিনেমা এমন আসরে করতালি নিয়ে ফিরবে। এবার পূরণ হলো সে আক্ষেপ। বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন ও গৌরবময় চলচ্চিত্র উৎসব কানে প্রশংসিত হলো বাংলাদেশের  ‘রেহানা মরিয়ম নূর’।

ছবিটি  কানের ডবসি থিয়েটারে বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ১৫ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ৩টা ১৫ মিনিট) প্রদর্শনী শুরু হয়। প্রায় পৌনে ২ ঘণ্টা ব্যাপ্তীর এই সিনেমাটির শুরু থেকে শেষ অবধি হল ভর্তি দর্শক দেখেছেন পিনপতন নিরবতায়।শেষ হওয়ার পর দর্শক দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন করেন এবং হাত তালিতে মুখরিত করেন ডবসি থিয়েটার

তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বাঁধন বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে দর্শক আমাদের স্ট্যান্ডিং ওভেশন দিয়েছে। সেই সঙ্গে সবার হাত তালিতে মুখরিত ছিলো হল রুম। এটা অসাধারণ এক অনুভূতি, বলে বোঝাতে পারবো না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন