দম্পতিদের  ৩  সন্তান নেওয়ার অনুমোদন দিল চীন

 

                                                                                                         প্রতীকী ছবি

চীনে জন্মহার আশঙ্কাজনক হারে কমে যাওয়ায় এখন থেকে প্রত্যেক দম্পতিকে তিনটি করে সন্তান নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এতে করে দেশটির কঠোর দুই সন্তান নীতির অবসান ঘটল।

সোমবার দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির পলিট ব্যুরোর এক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এই পরিবর্তন অনুমোদন করেছেন। চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিনহুয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চীনে আদশুমারির সম্প্রতি প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশটিতে জন্মহার অনেক কমে গেছে। এ প্রবণতা অব্যাহত থাকলে ভবিষ্যতে জনসংখ্যা হ্রাস পেতে পারে, এমন আশঙ্কায় দম্পতিদের আরও বেশি সন্তান নেওয়ার অনুমতির পথে এগোল চীন।

ন্যাশনাল ব্যুরো অব স্ট্যাটিসটিক গত মাসে জানিয়েছে, গত বছর দেশটিতে ১ কোটি ২০ লাখ শিশুর জন্ম হয়েছে। ২০১৬ সালে দেশটিতে ১ কোটি ৮০ লাখ শিশুর জন্ম হয়। সরকারি এই সংস্থাটি আরও বলেছে, দেশটিতে প্রজননের হার ১ দশমিক ৩।

১৯৬০ এর দশকের পর থেকে চীনে শিশু জন্মের এবারের হার সবচেয়ে কম। এ থেকে ধারণা করা হচ্ছিল, চীন তাদের পরিবার পরিকল্পনা নীতি আরও শিথিল করতে পারে।

২০১৬ সালে দেশটির সরকার তাদের এক সন্তান নীতি থেকে সরে এসে দম্পতিদের দুই সন্তান নেওয়ার অনুমতি দিয়েছিল। এর পরের দুই বছর জন্মহার বাড়লেও পরে তা ফের কমতে শুরু করে। এতে জন্মহার
হ্রাস ঠেকাতে সরকারের নেওয়ার পদক্ষেপের ব্যর্থতা স্পষ্ট হয়।

১৯৭৯ সালে জনসংখ্যা বৃদ্ধির লাগাম টেনে ধরার লক্ষ্যে চীনে ‘এক সন্তান নীতি’ চালু করা হয়েছিল।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন